ন হন্যতে: অপূর্ণ এক প্রেম আর অনন্য এক জীবনবোধের গল্প

তারা জানতেন, মৈত্রেয়ীর পরিবার এ সম্পর্কটিকে সহজে মেনে নিতে চাইবেন না। মৈত্রেয়ীর মা যতই তাকে ছেলের মতো নিজের বাড়িতে আশ্রয় দিক, মৈত্রেয়ীকে তার হাতে তুলে দিতে যে সবাই দশ পা পিছিয়ে যাবেন, এ তাদের দুজনেরই জানা ছিল মনে মনে। তাও ক্ষীণ আশা নিয়ে তাদের প্রেম অবাধে বেশ ভালোই চলছিল। খুনসুটি, রাগ, অভিমান, রাগ ভাঙানোর খেলা, বেড়াতে যাওয়া… এসব নিয়ে চলছিল বেশ। মির্চা মাঝেমধ্যে রবীন্দ্রনাথের প্রতি মৈত্রেয়ীর ভালোবাসা নিয়ে অভিমান করতেন, ঈর্ষান্বিত হতেন। তা দেখে মৈত্রেয়ী হেসে কুটিকুটি হতেন।

article

গাভী বিত্তান্ত: বিশ্ববিদ্যালয়ের বাস্তব রূপ ফুটে উঠেছে যেখানে

অবসরপ্রাপ্ত কোনো শিক্ষকের বাসাটি দখলের জন্য কে কাকে ল্যাং মেরে আগে তালা খুলবে, সেটা তখন রীতিমতো এক গবেষণার বিষয়। বিশ্ববিদ্যালয়ে সাধারণ শিক্ষকদের এত সহজে কোনো কাজ পেয়ে যাওয়ার কিঞ্চিৎ সম্ভাবনাই নেই যেখানে, সেখানে আবু জুনায়েদের মতো এক রদ্দি মানুষের উপাচার্য বনে যাওয়া নেহায়েতই দিবাস্বপ্নের মতো।

article

অনন্ত অম্বরে হুমায়ুনের জীবন থেকে

“এই জীবনে বেশির ভাগ কাজই করেছি আমি ঝোঁকের মাথায়। হঠাৎ একটা ইচ্ছে হল, কোনদিকে না তাকিয়ে ইচ্ছেটাকে সম্মান দিলাম। পরে যা হবার হবে।”

article

End of Articles

No More Articles to Load