ম্যাড ম্যাক্স ট্রিলজি: জর্জ মিলারের চিরসবুজ অ্যাকশন ক্লাসিক

আমাদের শিল্প-সাহিত্যে বারবার বলা হয়েছে সভ্যতার সমাপ্তি হবে বর্বরতার সূচনা বিন্দু। এই দর্শন ম্যাড ম্যাক্সের গল্পের অন্যতম বড় প্রভাবক। আমরা এখানে দেখতে পাই সভ্যতার পতন সৃষ্টি করেছে মাৎস্যন্যায়ের পরিস্থিতি। সবলের সীমাহীন অত্যাচারে দুর্বল অতিষ্ঠ। এমতাবস্থায় দুর্বলের পক্ষে দাঁড়িয়ে যায় ম্যাক্স।

article

হ্যানা-বি: তাকেশী কিটানোর মাস্টারপিস

সহকর্মীদের নৃশংস মৃত্যুর স্মৃতি পীড়া দেয় নিশীকে। সাথে যুক্ত হয় শীঘ্রই প্রিয়তমাকে হারানোর অনুতাপ। সে ঠিক করে জীবনের কিছু ভুলকে শোধরাতে হবে৷

article

ক্লোজ-আপ: ডকু ফিকশনে শিল্পানুরাগ ও স্বাধীনতার বয়ান

দিনশেষে, ক্লোজ-আপ একজন প্রেমিকের গল্প; যে শিল্প আর সিনেমার প্রেমে এতটাই মশগুল ছিলো যে, নিজেই পরিণত হয় একটি সিনেমার মূল বিষয়বস্তুতে। 

article

দ্য রাশিয়ান স্লিপ এক্সপেরিমেন্ট: যে আজগুবি ঘটনা সত্য বলে মানে অনেকেই!

ইন্টারনেটে নানা সময়ে নানা জন ঘুম বঞ্চনার দীর্ঘস্থায়ী ফলাফল কি হতে পারে তা নির্ণয়ের লক্ষ্যে এক্সপেরিমেন্ট পরিচালিত হয়েছে বলে দাবী করেছেন৷ এগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বিখ্যাত ‘দি রাশিয়ান স্লিপ এক্সপেরিমেন্ট।’ এর সাথে জুড়ে দেওয়া হয়েছে মডিফাই করা বিভিন্ন ছবিও।

article

থ্রি মাংকিজ: শ্রেণী ব্যবধান, অপরাধবোধ ও লালসার জালে আটকা কিছু মানুষ

কানের নয়নের মণি, সময়ের অন্যতম প্রভাবশালী এই তুর্কি ফিল্মমেকারকে আন্তর্জাতিক সম্মান এনে দিয়েছে নিজের জন্মস্থান আনাতোলিয়ার পটভূমিতে নির্মিত সিনেমাসমূহ। তাঁর চিন্তামগ্ন শৈল্পিকতায় ফুটে উঠেছে আনাতোলিয়া এবং সমকালীন তুর্কি জনমানুষের জীবনের দৈনন্দিন চিত্র।

article

স্লেন্ডার ম্যান: মিম থেকে জন্ম নেওয়া ইন্টারনেটের প্রথম গ্রেট মিথ

মিমের মাধ্যমে শুরু হওয়া কুন্ডসেনের কল্পিত চরিত্র নেটিজেনদের মাঝে নিয়ে আসে সৃজনীশক্তির দমক। সকলে স্লেন্ডার ম্যানকে নিয়ে নিজের মত করে গল্প লিখতে আর ছবি ম্যানিপুলেট করতে শুরু করে। এভাবে নয়া জমানার কিংবদন্তিতে পরিণত হয় এ চরিত্রটি।

article

ডার্বি দেল্লা ম্যাদোন্নিনা: মিলান শহরের ক্লাব শ্রেষ্ঠত্বের ধ্রুপদী মহারণ

ক্লাবের সমর্থকেরা ডার্বিকে নিজেদের শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণের যুদ্ধ বলে মনে করে, অন্যান্য ম্যাচের চেয়ে ডার্বি নিয়ে তাদের থাকে বিশেষ পরিকল্পনা। দিনশেষে নিজের দলকে জয়মাল্য বরণ করতে দেখাটাই এসব পরিকল্পনার মূল উদ্দেশ্য। ফুটবলে ডার্বির কোন অভাব নেই। আজকের আলোচনা মিলান ডার্বি নিয়ে, যাতে অংশ নেয় ইতালিসহ পুরো ইউরোপের অন্যতম সফল এবং জনপ্রিয় দুই ক্লাব মিলান এবং ইন্টার। 

article

কুইজ শো: একটি স্ক্যান্ডাল এবং আমেরিকান সমাজের বিশ্বাস হারানোর আখ্যান

সিডনি লুমেটের দ্য নেটওয়ার্ক (১৯৭৬) বা পিটার উইয়ারের ট্রুম্যান শো (১৯৯৮), মিডিয়াম হিসেবে টেলিভিশনের অগভীরতা, প্রতারণা আর চাতুরি নিয়ে হলিউড প্রায়শই সিনেমা নির্মাণ করেছে। অনেকে যদিও তাদের এবিষয়ে সিনেমা নির্মাণকে মাছের মায়ের পুত্রশোক হিসেবে দেখে। কারণ হলিউডেও তো এসব ভণ্ডামির কমতি নেই। পক্ষপাতিত্বহীনভাবে এই থিম নিয়ে কাজ করে সফল হতে পেরেছে গোনা কিছু মুভি। এই স্বল্প সংখ্যক মুভির তালিকায় স্থান পাবে কুইজ শো।

article

বুলিট: ষাটের দশকের যুগান্তকারী অ্যাকশন ফ্লিক

কিভাবে একটা সিনেমা অলটাইম ক্লাসিকের খেতাব লাভ করে? প্রথমত, এটিকে হতে হবে আইকনিক। থাকতে হবে অভিনবত্ব আর নতুনত্ব, এবং এমনকিছু করতে হবে; যা পূর্বে কোন চলচ্চিত্রে দেখা যায়নি৷ বুলিটে এসব গুণাবলির সবগুলোর উপস্থিতি ছিল, পাশাপাশি এটি আরো নানা দিক উন্মোচিত করে দেয় দর্শকদের সামনে৷

article

পাঞ্চ-ড্রাংক লাভ: পল থমাস অ্যান্ডারসনের ‘আর্ট হাউজ অ্যাডাম স্যান্ডলার ফিল্ম’

এই সিনেমাকে সূচিত করা যায় দুই মুখ্য ব্যক্তিত্বের ভিন্ন পথে চলার প্রজেক্ট হিসেবে। কেন্দ্রীয় চরিত্রের অভিনেতা অ্যাডাম স্যান্ডলারের ক্ষেত্রে এই অভিগমন নিজের শিল্পী সত্তার সাথে সকলকে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার৷ অন্যদিকে, পরিচালক পল থমাস অ্যান্ডারসনের ক্ষেত্রে এটি ছিল ভিন্নধর্মী কিছু করার সুযোগ।

article

উজাক: একাকিত্বের বিষণ্ন সুন্দর আখ্যান

ক্রমান্বয়ে আমরা দেখতে থাকি কিভাবে এই দুই পুরুষের আচার-আচরণ এবং মনস্তত্ত্ব পরস্পরকে প্রতিদ্বন্দ্বীতে পরিণত করে; উভয়ের জীবনাচরণ কিভাবে অন্য জনের কম্ফোর্ট জোনকে প্রভাবিত করে। ১১০ মিনিটের ড্রামা জনরার সিনেমাটি উভয় চরিত্রের পূর্ণাঙ্গ ব্যক্তিগত জীবনের ওপরও সবিস্তারে আলোকপাত করে।

article

পাডা: নিপীড়িতের অধিকারের কথা বলে যে মালায়লাম থ্রিলার

অন্য গ্রেট পরিচালকদের দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়ে, নিজের স্বাতন্ত্র্য বৈশিষ্ট্যও বজায় রেখেছেন কমল কেএম। পুরো মুভিতে দেখা গেছে নিপীড়িত, দলিতদের ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ। অনেকগুলো রাজনৈতিক প্রশ্ন উঠে এসেছে এখানে, প্রশ্নবাণে জর্জরিত করা হয়েছে ঘুণে ধরা সিস্টেম এবং রাজনৈতিক সংস্কৃতিকে।

article

End of Articles

No More Articles to Load