মিখাইল তাল: দ্য ম্যাজিশিয়ান ফ্রম রিগা || শেষ পর্ব

কিন্তু গুজব ছড়িয়ে পড়ে যে, অপারেশন থিয়েটারেই তাল মারা গেছেন। যুগোস্লাভিয়ার পত্রপত্রিকায় সেই খবর ছাপা হলে তার সেখানকার বন্ধু-বান্ধবগণ শোকে বিহ্বল হয়ে পড়েন। তাল তখন সশরীরে তাদের আশ্বাস দিতে যান সেই ক্লাসিক কৌতুক বলে, The rumors about my death are greatly exaggerated!

article

মিখাইল তাল: দ্য ম্যাজিশিয়ান ফ্রম রিগা || ১ম পর্ব

গত শতকের চল্লিশের দশক, সুনির্দিষ্ট করে বললে ১৯৩৬ সাল। জায়গাটা সোভিয়েত ইউনিয়নের রিগার রাজধানী লাতভিয়া। আজকের এই দিনে জন্ম হলো এক নক্ষত্রের, এক কিংবদন্তির।

article

শিল্পীর তুলিতে দাবার বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা | শেষ পর্ব

কালকে যদি দশটা পত্রিকাও ছাপে যে ‘ক্রামনিক নির্বোধ’, তাতেও আমি বিন্দুমাত্র টলে যাব না। কারণ, আমার পজিশন থেকে ঠিক কাজটাই আমি করেছি।

article

শিল্পীর তুলিতে দাবার বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা | পর্ব ২

একটা সময় তিনি সবাইকে সবকিছুতে টেক্কা দিয়েছিলেন, এনার্জি, ফোর্স, প্রিপারেশন, প্লেইং স্ট্রেংথ সবকিছুতে। সব রশ্মি যেন এক বিন্দুতে কেন্দ্রীভূত হয়েছিল।

article

শিল্পীর তুলিতে দাবার বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা: পর্ব ১

আজকালকার টিনেজ দাবাড়ুরা, কাপাব্লাঙ্কাদের চেনে না, স্মিস্লভ-পেত্রশিয়ান এরা আবার কারা? আলফা জিরো, স্টকফিশ এদের যুগে এসে কাপাব্লাঙ্কাদের না চেনা যদিও পারফরম্যান্সে নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে না, তবে তা হবে দাবার সমৃদ্ধ অতীত আর দাবা-সংস্কৃতির পরিপন্থী। তাই অ্যাশলক আশা করেন, তার এই চিত্রকর্মগুলো থেকে কিছু হলেও যেন নব্য দাবাড়ুগণ তাদের পূর্বসূরিদের চিনতে শেখে এবং জানতে আরও আগ্রহী হয়। 

article

ঢাবির গাজী সালাহউদ্দিন হারিয়ে দিলেন ববি ফিশারের প্রতিদ্বন্দ্বীকে!

ভাবুন তো কেমন হবে যদি ভার্সিটি পড়ুয়া কোনো সাধারণ দাবাড়ু হারিয়ে দেয় এমন কাউকে যার ব্যাপারে স্বয়ং ববি ফিশার তার বইয়ে লিখে গেছেন! হ্যাঁ প্রিয় পাঠক, ঠিক এমনটাই ঘটেছে গত ১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০২১।

article

“হেরে যাবার ভয় কখনও আমাকে কাবু করতে পারেনি”- দ্য বিগ ভ্লাদ || পর্ব-২

১৫ কেজি ওজন হারিয়েছিলাম, কোনো শক্ত খাবার খেতে পারতাম না। পাউরুটি পর্যন্ত চিবোতে পারতাম না, শুধু তরল খাবার আর ফলের জুসের উপর জীবন কাটাচ্ছিলাম। এমনও কিছু ওষুধ দেয়া হয়েছিল যা ক্যান্সারের রোগীকে দেয়া হয়। এগুলোর মাত্রাতিরিক্ত পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ছিল, এক সপ্তাহ অন্তর অন্তর রক্ত পরীক্ষা করতে হত। সপ্তাহে একদিন ওষুধ নিতে হত, সেদিন মনে হত আমার শরীরে কেউ হাতুড়ি চালাচ্ছে।

article

“হেরে যাবার ভয় কখনও আমাকে কাবু করতে পারেনি”- দ্য বিগ ভ্লাদ || পর্ব-১

১৯৯২ সালের শুরুতে লন্ডনে একটা বড় টুর্নামেন্ট আয়োজিত হয়েছিল, সময়টা আমার দাবাজগতে উত্থানের। আমার রেটিং ২৬০০ এর আশেপাশে হবে। আমাকে তারা অ্যাপেয়ারেন্স ফি হিসেবে ১৫০০ পাউন্ড অফার করেছিল, কিন্তু সেটা আনতে হত লন্ডন গিয়ে। কিন্তু লন্ডনের টিকেট সমপরিমাণ অর্থাৎ ৫০০ পাউন্ডও তখন আমার কাছে ছিল না। তারপর আমার বাবা তার ব্যবসায়ী বন্ধুর থেকে ৮০০ পাউন্ড ধার করেন দু’সপ্তাহর জন্য। এমন দিনও গেছে, বেশ ক’বার এরকম অভিজ্ঞতা হয়েছে আমার জীবনে।

article

কে জিততে চলেছে এবারের ক্যান্ডিডেটস টুর্নামেন্ট? || শেষ পর্ব

তবুও একজনের নাম যদি বলতেই হয়, তবে আমি ইয়ান নেপমনিয়াশির কথা বলবো। সে খুব শক্ত প্রতিপক্ষ হবে কার্লসেনের জন্য। সম্প্রতি শেষ হওয়া অনলাইন টুর্নামেন্টে (ম্যাগনাস কার্লসেন ইনভিটেশনাল) সে নিজেকে প্রমাণ করেছে। – সার্গে কারিয়াকিন

article

কে জিততে চলেছে এবারের ক্যান্ডিডেটস টুর্নামেন্ট? || পর্ব ২

নেপো-মাক্সিম এক্কেবারে শুরুতে আছেন পয়েন্ট তালিকার। বাকি রাউন্ডগুলো এভাবেই খেলতে পারলে হয়তো তাদেরই কেউ একজন বিজয়ী হবেন। কিন্তু মাঝ বরাবর যারা আছেন, তাদের উত্থানের সম্ভাবনাও উড়িয়ে দেয়া যায়না। অভিজ্ঞ ফাবি কিংবা ফর্মের তুঙ্গে থাকা গিরি দুজনই কিন্তু নিজের স্পট বুঝে নিতে জানেন।

article

কে জিততে চলেছে এবারের ক্যান্ডিডেটস টুর্নামেন্ট? || পর্ব ১

সেই প্রেস কনফারেন্সেই সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়ন আনাতোলি কারপভ জানান, প্রথম পর্বের সাত রাউন্ডের পর বিরতির নির্দেশ স্বয়ং পুতিন-এর থেকেই এসেছিল। তার ভাষ্যমতে ভ্লাদিমির ভ্লাদিমিরোভিচ (পুতিন) নিজেই কল করেছিলেন।

article

দাবার ইতিহাসে যুগসন্ধিক্ষণের কিছু মুহূর্ত || পর্ব ২

স্টেইনিজ কোনো চেস স্কুল অফ থটের প্রতিষ্ঠা করে যাননি বটে, তবে তিনি ছিলেন একজন প্রকৃত এক্সপেরিমেন্টর। তিনি দেখিয়ে গিয়েছেন যে, দাবাও অনুশীলনের এবং গবেষণার বিষয়, চাইলে এখানেও কিছু প্যাটার্ন খুঁজে বের করা সম্ভব।

article

End of Articles

No More Articles to Load