গন্ডোলার ভেনিস, জলে ভাসার ভেনিস

কয়েক শতাব্দী আগে, গন্ডোলা ছিল ভেনিসের পরিবহনের প্রধান মাধ্যম। তবে সময়ের পরিক্রমায় বর্তমানে এটি খুব জনপ্রিয় পর্যটক আকর্ষণ হয়ে উঠেছে, এবং সম্ভবত ভেনিসের সবচেয়ে স্বীকৃত প্রতীক।

article

দ্য সেভেন হ্যাবিটস অব হাইলি ইফেক্টিভ পিপল: যে অভ্যাসগুলো বদলে দেবে জীবন (পর্ব | ১)

“কোনও ব্যক্তি চিরকাল স্থায়ী হয় না, তবে বই এবং ধারণা ঠিকই টিকে যায়।” – জিম কলিন্স
চিরকাল স্থায়িত্ব ছাড়াও কখনও কখনও একটা বই মানুষের জীবন পরিবর্তন করতে পারে। মানুষের দৃষ্টিভঙ্গী পরিবর্তন করার এমন একটা বই নিয়ে আমাদের আজকের আয়োজন। পৃথিবীব্যাপি ব্যাপকভাবে সমাদৃত স্টিভেন আর কোভের সেভেন হ্যাবিটস অব হাইলি ইফেকটিভ পিপল বইটিতে খুব সুন্দর করে বুঝানো হয়েছে আসলেই জীবনকে অর্থবহ করে তোলার জন্য কিভাবে আমরা তৈরী করব নিজেদের। বইটিতে বর্ণনা করা প্রতিটা নীতি নিয়ে লেখক নিজেই বলেছেন,
“হ্যাঁ, আমি বইটি লিখেছিলাম, তবে নীতিগুলি আমাদের অনেক আগে থেকেই জানা ছিল।” তিনি আরও বলেন, “নীতিগুলো প্রাকৃতিক নিয়মের মতো ছিল। আমি যা করেছি তা মানুষের জন্য সংশ্লেষিত করে সেগুলিকে একত্রিত করা।”

article

২২শে শ্রাবণ: সৃজিত মুখার্জির তৈরি অনন্য মনস্তাত্ত্বিক থ্রিলার

কোলকাতার রাস্তায় ঘটে চলছে একের পর এক নারকীয় হত্যাকাণ্ড। টানা আট মাস ধরে একই ধাঁচে খুন হলেও পুলিশ কোনো কূল খুজে পায়নি কেস সমাধান করার। মিডিয়ায় হত্যাগুলো নিয়ে নানা কথার প্রেক্ষিতে ভয়ে আছে কোলকাতার সাধারণ মানুষও। অথচ এই কেস নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন অভিজিৎ পাকরাশির মতো মেধাবী পুলিশ অফিসার। যারা থ্রিলার সিনেমা পছন্দ করেন তারা হয়তো বুঝে গেছেন সিনেমার গল্পটি কোন দিকে এগোচ্ছে। বাংলা সিনেমায় আধুনিককালে এক নতুন ধারা নিয়ে আসা সৃজিত মুখার্জীর দ্বিতীয় সিনেমা বাইশে শ্রাবণ। অটোগ্রাফ সিনেমা দিয়ে শুরুতেই বাজিমাত করা সৃজিত বাইশে শ্রাবণেও কুড়িয়েছেন দর্শক এবং সমালোচকদের প্রশংসা।

article

দ্য লাঞ্চবক্স: রিতেশ বাত্রার ব্যতিক্রমধর্মী সিনেমা

মানুষের জীবন বড়ই অদ্ভুদ। কেউই জানে না তার জীবনের শেষে কোথায় গিয়ে ভিরবে জীবনতরী কিংবা অন্যভাবে বললে মানুষ যেভাবে ভাবে কখনোই ভবিষ্যৎ সেভাবে ধরা দেয় না। কিন্তু তবুও মানুষের জীবন থেমে থাকে না। তাকে ছুটে চলতে হয়, ভাল থাকতে হয়। পূর্ণ করতে হয় জীবনের চাওয়া পাওয়াগুলোকে। বলা হয়ে থাকে, “কখনও কখনও ভুল ট্রেনও আপনাকে সঠিক গন্তব্যে পৌছে দিতে পারে।” এই কথাটি নেওয়া হয়েছে মানুষের জীবন নিয়ে করা রিতেশ বাত্রার ব্যতিক্রমধর্মী একটি সিনেমা ‘দ্য লাঞ্চবক্স’ থেকে। অনেক সিনেমাই তো জীবন নিয়ে করা হয়, কিন্তু এই সিনেমার ব্যতিক্রমটা কোথায় কিংবা কেন সমালোচকদের কাছেও বাহবা কুড়ানো সিনেমাটি বক্স অফিসেও করেছে রেকর্ড ভাঙা সাফল্য? চলুন গল্পটা শুনে আসা যাক।

article

যেভাবে পোকাদের মাধ্যমেও হয় উদ্ভিদের বিভিন্ন রোগ

আর এই উদ্ভিদের যেহেতু জীবন আছে তাই অন্যান্য জীবের মতো উদ্ভিদকেও টিকে থাকার জন্য লড়াই করতে হয় নানা ধরনের প্রতিকূল পরিবেশের। সেটা হতে পারে অনুজীবের আক্রমণে তৈরী রোগব্যাধি কিংবা পোকামাকড়ের বা আরও বড় কোন প্রাণির আক্রমণে তৈরী বিভিন্ন ক্ষয়ক্ষতি। কিন্তু এমন যদি হয় এসব পোকামাকড় আর জীবাণুরা উদ্ভিদকে ক্ষতিগ্রস্ত করায় একে অন্যকে সাহায্য করছে তবে কিন্তু ক্ষতিটা বেড়ে যাবে বহুগুণে। এজন্যেই এই দিকটি নিয়ে উদ্ভিদবিজ্ঞানী আর কৃষিবিজ্ঞানীরা ক্রমশই কাজ করে যাচ্ছে যাতে গাছের ক্ষতি অনেকাংশেই কমিয়ে আনা যায় এবং সেই সাথে প্লান্ট প্যাথলজির গুরুত্বও প্রতিনিয়ত বেড়ে যাচ্ছে।

article

ভবিষ্যতের খাদ্য নিরাপত্তায় জিএমও ফসল

আমরা আজ যে খাবার খাই তার বেশিরভাগই ট্র্যাডিশনাল প্রজনন পদ্ধতির মাধ্যমে তৈরি করা হয়েছে। কিন্তু ট্রেডিশনাল প্রজননের মাধ্যমে গাছপালা এবং প্রাণী পরিবর্তন করতে অনেক সময় লাগতে পারে এবং খুব নির্দিষ্ট পরিবর্তন করা কঠিন। এরই প্রেক্ষাপটে ১৯৭০ এর দশকে বিজ্ঞানীরা জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং তৈরি করার পরে, তারা আরও নির্দিষ্ট উপায়ে এবং অল্প সময়ের মধ্যে অনুরূপ পরিবর্তন করতে সক্ষম হয়।

article

অর্থনীতিতেও অবদান রাখতে পারে যেসব পোকামাকড়

পোকামাকড়ের নাম শুনলে অনেকের মনে এর ক্ষতির দিকটাই হয়ত আগে চলে আসে কিংবা কখনও কখনও পোকাদের প্রতি অনেকের ভয়ও কাজ করে। কিন্তু পৃথিবীর অনেক দেশেই কিন্তু খাদ্য হিসেবে পোকা শ্রেনীর প্রাণীদের বেশ কদর রয়েছে। আর বিয়ার গ্রিলসের মতো বললে তো প্রচুর প্রোটিনের উৎস এই পোকামাকড়। খাবারের বাইরেও এসব প্রাণীদের কিন্তু আরও অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে মানুষের জীবনে। কৃষি ক্ষেত্রে অনেক পোকা ফসলের ক্ষতি করলেও প্রেয়িং মেন্টিড কিংবা লেডি বার্ড বিটেলের মতো প্রিডেটর শ্রেণীর পোকারা কিন্তু ফসলের জন্যে বেশ উপকারী। পবিত্র কোরআন এও বেশ কয়েকবার পোকামাকড়ের মাঝে যে মানুষের জন্য বরকত অন্তর্নিহিত রয়েছে তার উল্লেখ রয়েছে।

article

বাংলাদেশে কৃষি সম্প্রসারণ কেন প্রয়োজন?

সভ্যতার শুরু থেকে আজকের আধুনিক যুগ পর্যন্ত মানুষ চলে এসেছে অনেক দূর। এক মহাদেশ থেকে অন্য মহাদেশ অতিক্রম করা তো দূর অতিত এখন মানুষ পা রাখছে চাঁদের বুকে স্বপ্ন দেখছে মঙ্গল বিজয়ের। কিন্তু এই সুদীর্ঘ সময়েও কৃষক এবং কৃষির গুরুত্ব কখনওই কমেনি বরং দিন দিন বেড়েছে। মানুষ দিন দিন আবিষ্কার করছে নতুন নতুন প্রযুক্তি যা কৃষির উন্নতিতে সর্বোপরি মানব জাতির কল্যাণে ব্যবহার করাই আজকের কৃষতে এতো জয়জয়কার বয়ে এনেছে। কিন্তু বিজ্ঞানের এই কল্যাণকর অবদান কৃষকের কাছে পৌঁচে তো দিতে হবে। এই কাজটিই করে থাকে বাংলাদেশে কৃষি মন্ত্রণালয় এর অধিনে কাজ করা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর।     

article

অ্যাকোয়াপনিক্স: টেকসই জৈব ফসল উৎপাদন এবং জলজ প্রাণী চাষের সংমিশ্রণ

অ্যাকোয়াপনিক্সে এই দুই পদ্ধতির মাঝে একটি সিম্বায়োটিক সংমিশ্রণ তৈরি করা হয় যেখানে গাছপালার জন্য পুষ্টির যোগান দেয় জলজ প্রাণীদের বর্জ্য আর গাছের দ্বারা পানি পরিশুদ্ধ হয়ে পুনরায় মাছ চাষের উপযুক্ত হয়ে উঠে।

article

End of Articles

No More Articles to Load