কোরবানিতে গরুর মাংসের সেরা চার পদ

সামনেই আসছে কোরবানির ঈদ। গৃহিণী সমাজে চলছে ব্যাপক প্রস্তুতি। আদা রসুন পেঁয়াজ বাটা হচ্ছে কিনা, ফ্রিজে মাংস রাখার যথেষ্ট জায়গা আছে কিনা ইত্যাদি নিয়ে ভীষণ ব্যস্ত আমাদের রাঁধুনিসমাজ।

ঈদের দিন মেহমান এবং আত্মীয় স্বজনদের কোন কোন পদ দিয়ে আপ্যায়ন করবেন সেই চিন্তায় ঘুম হারাম কিংবা সিদ্ধান্তহীনতায় ভুগছেন? তবে আপনার জন্যই আমাদের আজকের এই আয়োজন। চলুন আজ দেখে নেই গরুর মাংসের কিছু সাধারণ রেসিপি যা আপনার রন্ধনকৌশলের সুখ্যাতি এনে দিতে বাধ্য।

মেজবানি মাংস

mejbani-mangso

Image source: banglatribune.com

চট্টগ্রামের বিখ্যাত মেজবানি মাংসের কথা শুনেছেন আশা করি। অনেকের ধারণা বাসায় এত মজা করে মেজবানি মাংস রান্না করা অসম্ভব। তাদের জন্য আশার বাণী হল মেজবানি মাংস বাসায় রান্না করলেও বাবুর্চির হাতে রান্না টেস্ট পাবেন। আজ তেমনই একটা রেসিপি আপনাদের জন্য দেখানো হল। চলুন, দেখে নিই কি সেই স্পেশাল রেসিপি?

প্রয়োজনীয় উপকরণঃ

  • ২-৩ কেজি গরুর মাংস ছোট ছোট টুকরো করে কাটুন এবং ভাল করে ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিন।
  • মোটামুটি এক কেজি পেঁয়াজ, অর্ধেক কুচি করা বাকি অর্ধেক বাটা
  • ১০০ গ্রাম আদাবাটা এবং ১০০ গ্রাম রসুন বাটা
  • ২/৩ চামচ হলুদ মরিচ
  • ১ চামচ শাহি জিরা এবং ধনিয়া গুড়া
  • ৫০ গ্রাম সাদা সরিষাবাটা
  • ৫০ গ্রাম চিনাবাদামবাটা
  • ২০০ গ্রাম নারকেলবাটা
  • কাশ্মীরি শুকনা মরিচ। এতে ঝালের চেয়ে রংটা সুন্দর আসে
  • ১ কেজি সরিষার তেল
  • লবণ স্বাদমত
  • ঝালের জন্য ১০-১২ টা কাঁচামরিচ দিতে পারেন।
  • ১ টেবিলচামচ চিনি এবং ৫/৬ টা তেজপাতা
  • ৫/৬ টা ভাজা আলু দিতে  পারেন আপনার ইচ্ছামত

এখন আমরা একটা স্পেশাল মসলার কথা  বলবো যেটাকে বলতে পারেন মেজবানি মাংসের প্রাণ। স্পেশাল এই মশলার জন্যই মেজবানি মাংস এতটা স্পেশাল। চলুন দেখে নেই কিভাবে ঘরে বসেই তৈরি করবেন এই মশলা

  • ৫-৬ টা লবঙ্গ, ৩-৪ টা এলাচ, ৩ টুকরো দারুচিনি, ২/৩ চামচ জয়ত্রি, ২/৩ চামচ পোস্তদানা, জয়ফল, গোলমরিচ ৬/৭ টা। এবার সব একসাথে পানি দিয়ে বেটে পেস্ট করে নিন।

প্রস্তুত প্রণালীঃ

চিনি, পেঁয়াজ কুচি আর তেজপাতা বাদে বাকি সকল উপকরণ দিয়ে মাংস মাখিয়ে নিন  এবং ১ ঘন্টা রাখুন। একটা কড়াইয়ে তেল দিন এবং তেল তপ্ত  হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। এরপর কুচানো পেঁয়াজ এবং তেজপাতা দিয়ে হালকা লাল না হওয়া পর্যন্ত ভাজতে থাকুন। এবার মাখান মাংসটা ঢেলে দইন। ৫-৬ মিনিট কষান। এবার বেশি করে পানি দিয়ে ঢেকে দিন। মাংস অল্প আঁচে সেদ্ধ করুন। মনে রাখবেন ঢাকনাটা যেন ভাল করে বন্ধ করা থাকে। হয়ে ভাজা আলু দিয়ে নামিয়ে ফেলুন। হয়ে গেল সুস্বাদু মেজবানি মাংস, গরম ভাত কিংবা পরোটা দিয়ে খেতে পারেন

জালি কাবাব

jali-kabab-2

Image source: shunipun.com

কোরবানির ঈদ। আত্মীয় স্বজন মেহমানদের আপ্যায়নে জালি কাবাবের তুলনাই হয় না। তাই এই কোরবানে গৃহিণীদের পছন্দের শীর্ষে রয়েছে জালি কাবাব। তো চলুন দেখে আসি কিভাবে তৈরি করবেন লোভনীয় মোঘলাই জালি কাবাব।

প্রয়োজনীয় উপকরণঃ

গরুর মাংস ১ কাপ (একদম ছোট ছোত টুকরো করবেন যাতে সেদ্ধ হতে বেশি সময় না নেয়), মসুরের ডাল ১ মুঠের কম, ছোলার ডাল ১ মুঠ, ইচ্ছে হলে ১টা ছোট আলুও দিতে পারেন, কাঁচামরিচ কুচি স্বাদমত, লবণ স্বাদমত, ১/২ কাপ মিহি করে কাটা পেঁয়াজ কুচি, আদা রসুন বাটা ২ চা চামচ, টমেটো সস ১ চা চামচ, জিরা এবং ধনিয়া বাটা মিক্স ১ চা চামচ, সামান্য হলুদ, গরম মশলা এবং এলাচ বাটা ১ চা চামচ, ডিম ১ টি।

প্রস্তুত প্রণালীঃ

লোহার কড়াই বা প্রেশার কুকারে পেঁয়াজ, কাঁচামরিচ, অর্ধেক গরম মশলা বাদে বাকি সব সেদ্ধ করুন। সিদ্ধ হলে পানি শুকিয়ে নিন। খেয়াল রাখবেন পানি যেন না থাকে এবং ঝরঝরে হয় যেন। এবার পাটা কিংবা ব্লেন্ডারে মিহি করে ব্লেন্ড করুন। এবার পেঁয়াজ, কাঁচামরিচ এবং বাকি মশলা দিয়ে ভাল করে নরম করে মেখে নিন। ১২-১৩ টা কাবাব তৈরি করুন। এবার ডিমটি কসুম সহ ফাটিয়ে নিন সাতেহ ৪-৫ ফোঁটা পানি মিশিয়ে নিন। কাবাবগুলো ডিমে চুবিয়ে ডুবো তেলে বাদামী করে ভাজুন। মনে রাখবেন কাবাব যত ভাল করে ডিমে ডোবাবেন তত ভাল জালি জালি ভাবটা আসবে। ব্যস, তৈরি হয়ে গেল মজাদার জালি কাবাব। পরিবেশন করুন বিরিয়ানী, তেহারি, কাচ্চি কিংবা শুধু সস দিয়ে।

গরুর মাংসের কালো ভুনা

kalo-vuna-1

Image source: amaderrannaghor.blogspot.com

kalo-vuna-2

Image source: amaderrannaghor.blogspot.com

সারা বছর কম বেশি আমরা সবাই পুরান ঢাকা যাই গরুর কালো ভুনা খেতে। এই কোরবানে লোভনীয় এই কালো ভুনা খেতে পারবেন নিজে বাসায় সহস্তে রান্না করে। চলুন দেখে নেই গরুর মাংসের কালো ভুনার রেসিপি।

প্রয়োজনীয় উপকরণঃ

গরুর মাংস ১ কেজি, পেঁয়াজ ফালি ১ কাপ, কালো গোল মরিচ গুঁড়া ১ চা চামচ, আদা রসুন বাটা ১ চা চামচ, দারুচিনি, লবঙ্গ, মরিচ গুঁড়া, জয়ফল জয়ত্রি গুঁড়া, এলাচ গুঁড়া, ভাজা জিরা গুঁড়া সবই ১ টেবিল চামচ, সরিষার তেল পরিমাণ মত, কাচামরিচ ইচ্ছামত, লবণ স্বাদমত।

প্রস্তুত প্রণালীঃ

তেল এবং পেঁয়াজ ছাড়া আর বাদ বাকি সব উপকরণ মাংসে মাখিয়ে কিছুক্ষণ (১ ঘন্টা) রাখুন। এবার মাংস চুলায় কিংবা প্রেশার কুকারে বসান। কিছুক্ষণের মাঝে মাংস থেকে পানি বের হয়ে এলে দেখবেন পানি টানতে শুরু করবে এবং আপনি বুঝবেন মাংস সেদ্ধ হয়ে এসেছে। মাংস মোটামুটি শুকিয়ে এলে নামিয়ে ফেলুন এবং একটা কড়াইয়ে তেল গরম করে পেঁয়াজ কাঁচামরিচ দিয়ে দিন। পেঁয়াজ হালকা ভেজেই মাংস দিয়ে দিন এবং অল্প আঁচে ভাজতে থাকুন। এমনভাবে ভাজবেন যেন মাংসের মশলা শুকিয়ে তেল উপড়ে উঠে আসবে কিন্তু খেয়াল রাখবেন মাংস যেন শক্ত না হয়ে যায়। ব্যস, তৈরি হয়ে গেল মজাদার গরুর কালো ভুনা। গরম গরম পরোটা দিয়ে পরিবেশন করুন।

গরুর মাংসের কিমা কাঠি কাবাব

kima-kathi-kabab

Image source: bdlive71.com

জালি কাবাবের পর কিমা কাঠি কাবাব সবচেয়ে জনপ্রিয়। মজাদার এই কাবাব বানানোর রেসিপিটা দেখে নিন।

প্রয়োজনীয় উপকরণঃ

গরুর মাংসের কিমা আধা কেজি, আদা বাটা, রসুন বাটা, কাবাব মশলা, গরম মশলা বাটা, লেবুর রস সবই ১ চা চামচ করে, পেঁয়াজ কুচি ২ কাপ, কাঁচামরিচ ইচ্ছামত, তেল ১ কাপ, গোল মরিচ গুঁড়া ১/২ চা চামচ, টমেটো সস ২ টেবিল চামচ, দুধ ৪ টেবিল চামচ, পাউরুটি ২ টুকরো, বসেল লিফ ১ চা চামচ, লবণ স্বাদমত।

প্রস্তুত প্রণালীঃ

প্রথমে পুরো দুধটুকুই একটা পেয়ালায় ঢেলে নিন এবং এতে ভালভাবে পাউরুতি ভিজিয়ে নিন। এবার পাউরুটির দলাটুকু কিমার সাতেহ মেখে নিন। অন্যান্য মশলা এবং রুটি মিশ্রিত কিমা একসাথে ভালভাবে মেখে ঘন্টাখানেক ঢেকে রেখে দিন। এবার হাতের মুঠি ভরে কিমার দলা নিয়ে কাবাব বানিয়ে শিকে গেঁথে নিন। এবার কড়াইয়ে তেল দিন। তেল তপ্ত হলে এতে কাবাবের শিক্তি লাল লাল করে ভাজুন। ব্যস হয়ে গেল মজাদার মাংসের কিমা কাবাব। লুচি, পরোটা কিংবা বিরিয়ানির সাথে গরম গরম পরিবেশন করুন।

The article is about delicious beef recipes for the Eid-ul-adha festivals. Four finger licking recipes are described.

References:

  1. Shajgoj.com
  2. beshto.com
  3. Rananrgolpo.com
  4. Siddiqa kabirs recipies
  5. RannarGolpo.com

Featured image: Bdnow24.com

Related Articles