অনলাইন সার্ভিস মার্কেট: সেবা আদান-প্রদানের সহজতম প্ল্যাটফর্ম

ধুমধাম করে চলছে একটি বিয়ের অনুষ্ঠান। বাড়ি ভর্তি আত্মীয় স্বজন। চলছে খাওয়া দাওয়া, বাচ্চারা দাপিয়ে বেড়াচ্ছে চারিদিক। শত মানুষের ভিড়। শান্ত বাসাটা যেন বদলে গেছে। বিয়ের অনুষ্ঠান মানেই বিশাল আয়োজন। নানারকম খুঁটিনাটি কাজ সারাক্ষণ লেগেই থাকে। বেশ কয়েকদিন ধরেই চলে উৎসব। আনন্দের যেন বিরতি নেই। একসময় শেষ হয়ে আসে সকল আয়োজন। ধীরে ধীরে শান্ত হয়ে আসে উৎফুল্ল বাড়িটি।

বিয়েবাড়ি মানেই হাজারো মানুষ! Image Credit: Len Theivendra

কল্পনা করুন এমনই একটি বিয়ের অনুষ্ঠানের কথা। কত হাজার রকমের কাজ আর সেই অনুসারে কর্মীর দরকার হয় এখানে! বিয়েবাড়িতে সব কাজ সবাই মিলে করাই আনন্দের, কিন্তু কিছু কিছু কাজ থাকে যেগুলো আসলে দক্ষ লোক ছাড়া ঠিকমতো হয়ে ওঠে না।

যেকোনো সময়ে দরকার হয় গাড়ির। এতগুলো মানুষের কাপড় ধোয়ার সময় নেই, ওদিকে বাসা রং করতে হয়, পুরনো আসবাব পরিস্কার করতে হয়, গোটা ঘর পরিস্কার করতে হয়, এসি-ফ্রিজ-টেলিভিশন কোনোটা নষ্ট হয়ে পড়ে থাকলে সারিয়ে নিতে হয়। এই প্রতিটা কাজের জন্য আলাদা আলাদা লোক খুঁজে আনতে গিয়ে নষ্ট হয় একগাদা সময়। সময়মতো সব ধরনের লোক পাওয়াও মুশকিল। এদিকে বাসায় এত লোকের রান্না করাটাও কষ্টের, আবার বিয়ের নানা ধাপের অনুষ্ঠানে সাজগোজের জন্য পার্লারে যাওয়াটাও সময় নেয় অনেক। এরকম অসংখ্য কাজের চাপ থেকে মুক্তি পেলে হয়তো এমন একটা অনুষ্ঠানে সবাই মিলে আড্ডা দেওয়া আর আনন্দ করার সময়টা একটু বেশি পাওয়া যায়। এমন কোনো উপায় কি আছে যার ফলে দুশ্চিন্তামুক্ত হয়ে সহজেই উদ্ধার হওয়া যাবে এসব কাজ থেকে?

অনেক রকম কাজের জন্য খুঁজতে হয় অনেক রকমের মানুষ; Image Credit: Stef Hoffer

উন্নত দেশগুলোতে অনলাইনেই এসব সেবা অর্ডার করা যায়। প্রতিটি কাজের জন্য সেই সেই কর্মভিত্তিক প্রতিষ্ঠান এসব সেবা প্রদান করে থাকে। যুক্তরাষ্ট্রে আপনার যদি গাড়ি সার্ভিসিংয়ের দরকার হয়, চাইলেই আপনি আশেপাশের কোনো সার্ভিসিং গ্যারেজ এর ওয়েবসাইটে গিয়ে লোক ডাকিয়ে নিতে পারেন। আমাদের দেশে অবশ্য সব ধরনের প্রতিষ্ঠানের অনলাইনে অংশগ্রহণ এখনও শুরু হয়নি। অনলাইনে মানুষের অভ্যস্ততা এসেছে কেবল যোগাযোগে, গুগল, ফেসবুক কিংবা ইউটিউব ব্যবহারে। ইদানিং কেনাকাটার জন্যও জনপ্রিয় হতে শুরু করেছে অনলাইন স্টোরগুলো। তবে অনলাইনের মাধ্যমে বিভিন্ন কাজের জন্য বাসাতেই লোক নিয়ে আসার প্রবণতাটি এখনও তৈরি হয়নি, এমন সুযোগ দেয় সেধরনের প্রতিষ্ঠানই নেই খুব বেশি।

কিন্তু সময় বদলে যাচ্ছে। অনলাইনের মাধ্যমে সেবা নেওয়ার বিষয়টি ধীরে ধীরে চিনতে শুরু করেছে আমাদের দেশের মানুষ, বিশেষ করে রাজধানী ঢাকার বাসিন্দারা। অনলাইন সার্ভিস মার্কেট বলে একটি প্ল্যাটফর্ম হলো এই ধরনের সেবার মূলভিত্তি।

অনলাইনে আসছেন দক্ষ মানুষ; Image Credit: Belal Hossain Rana/Pacific Press/LightRocket via Getty Images

এককথায় বলতে গেলে, অনলাইন সার্ভিস মার্কেট হলো এমন একটি প্ল্যাটফর্ম, যেখানে যারা সেবা প্রদান করবে এবং যারা সেবা গ্রহণ করবে তারা একত্রে যুক্ত হতে পারে। এখানে একজন দক্ষ মানুষ তার দক্ষতা নিয়ে সেবা দেওয়ার জন্য আসে, আর একজন গ্রাহক তার কাজের জন্য সেই দক্ষ মানুষটিকে এখান থেকে খুঁজে নেয়। সেবাদাতাদের মধ্যে থাকে অনেকগুলো বিকল্প, ফলে ইচ্ছে ও রুচিমতো সেবা গ্রহণ করা যায় এখানে। সেবা গ্রহীতা এখানে রেটিং দিতে কিংবা মন্তব্য জানাতে পারেন; একারণে সেবাদাতাদের মধ্যে প্রতিযোগিতা থাকে ভালো সেবা দেওয়ার জন্য, তাই নিশ্চিত হয় সেবার মানও।

এই অনলাইন সার্ভিস মার্কেট মানুষের জীবনকে দারুণ রকমের সহজ করে দিতে পারে। যেমন ধরুন, আপনার মোবাইলে একটি সমস্যা দেখা দিল। মোবাইলটা চালু হওয়া আপনার জন্য খুবই দরকার এবং যেখান থেকে সার্ভিসিং করাবেন সেই জায়গাটা আপনার বাসা থেকে অনেক দূরে। জ্যাম পেরিয়ে সেখানে যাওয়া মানে অনেকখানি সময় নষ্ট হওয়া। এমনই মুহূর্তে অনলাইন সার্ভিস মার্কেট আপনার কাজটা খুব সহজ করে দেবে। আপনি একটা অ্যাপলিকেশনে কয়েকটা ক্লিক করেই মোবাইল সার্ভিসিং করেন এমন একজনকে বাসায় ডেকে নিতে পারবেন।

অনলাইন সার্ভিস মার্কেট সহজ করবে মানুষের জীবন; Image Credit: Worldreader

এই কাজটির জন্য সেবা প্রদানকারী এমন কোনো সার্ভিস মার্কেটের সাইটে অথবা অ্যাপলিকেশনে আপনি রেজিস্ট্রেশন করে নিলেই হলো। সেখানে আপনি খুঁজে পাবেন সব কাজের জন্য নিবন্ধিত সেবাদাতাদের। এরপর আপনি আপনার প্রয়োজন মতো অর্ডার করবেন এবং সেই অর্ডারটি কনফার্ম করা হলে আপনার বাসা বা অফিসের ঠিকানায় একটা নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই পৌঁছে যাবেন সেবাদাতা। সমস্যা সমাধান হয়ে গেলে হাতে হাতে অথবা বিকাশ বা রকেটের মতো অ্যাপের মাধ্যমেও বিল পরিশোধ করতে পারবেন আপনি। অনলাইন যে আপনার জীবনকে এতটা সহজ করতে পারে, সেটা এভাবে ভেবেছেন কখনো!

আগেই বলেছি, এই ধরনের অনলাইন সার্ভিস মার্কেটের চল বিদেশে বেশ থাকলেও বাংলাদেশে এটা শুরু হয়েছে মাত্র বছর দুয়েক আগে। সেবা (Sheba.xyz) নামক একটি প্রতিষ্ঠান প্রথম এই মার্কেটটি চালু করেছে বাংলাদেশে।

সেবা (Sheba.xyz) নামক একটি প্রতিষ্ঠান প্রথম এই মার্কেটটি চালু করেছে বাংলাদেশে © Sheba.xyz

মূলত তিনটি মাধ্যমে একজন গ্রাহক এই সেবা প্ল্যাটফর্মটি ব্যবহার করতে পারেন। সেবার ওয়েবসাইট কিংবা অ্যাপলিকেশনে প্রবেশ করলেই গ্রাহকের অবস্থান এবং প্রয়োজন জানিয়ে অর্ডার করা যায়। পাশাপাশি কলসেন্টারের (১৬৫১৬) নাম্বারে ফোন করেও পাওয়া যায় প্রয়োজনীয় সেবা।

এসি মেরামত, ইলেকট্রনিকসের যন্ত্রপাতি মেরামত, স্যানিটারির যাবতীয় কাজ, দেয়াল রং করা, ঘর পরিস্কার করা, ফার্নিচার তৈরি ও মেরামত, বিউটি সার্ভিস, লন্ড্রি, গাড়ি কিংবা ড্রাইভার সার্ভিস, বাসা বদলের কাজ- কী হয় না এখানে! এই ধরনের সব কাজের জন্যই কিন্তু আমরা প্রতিদিন ঘর থেকে বেরিয়ে লোক খুঁজতে থাকি আর সময় নষ্ট করি। অথচ এখানে আপনি চাইলে একটি অ্যাপেই পাচ্ছেন সবাইকে। সেখানে দেখতে পারবেন কোন ধরনের কাজের জন্য কত খরচ হবে, দেখা যাবে কোন সেবাদাতার রেটিং কত সেটাও। সবচেয়ে বড় ব্যাপার হলো, এখানে প্রতিটি কাজের জন্য আছে ওয়ারেন্টির ব্যবস্থা, সেকারণে প্রতিজন সেবাদাতাই নিজের কাজ নিয়ে দায়বদ্ধতার জায়গাটা নিশ্চিত করেন।

সব পেশার মানুষই যোগ দিতে পারেন এই মার্কেটে © Sheba.xyz

অনলাইনেই সব রকমের কাজের জন্য দক্ষ মানুষ খুঁজে পাওয়া সম্ভব, এই কথা কি বছর দুয়েক আগেও কেউ ভেবেছে? পৃথিবী বদলে যাচ্ছে খুব দ্রুত, স্মার্টফোন পাল্টে দিচ্ছে জীবনযাত্রার ধরন। প্রচণ্ড ব্যস্ততার মাঝে পাওয়া অবসরটুকু আমরা সবাই কাটাতে চাই নিজেদের মতো করে। এরই মাঝে যদি একটা ছোট্ট কাজের জন্য লোক খুঁজতে খুঁজতে সময়গুলো নষ্ট করে ফেলতে হয়, তাহলে তো জীবনটাই পানসে হয়ে যায়। সেকারণেই অনলাইন সার্ভিস মার্কেট। সেকারণেই Sheba.xyz। সহজ অ্যাপলিকেশন, স্মার্ট সেবাদাতা, এবার জীবন হোক আরও সহজ।

Featured Image Source: Microsoft News/Edited by Jakaria Hasan

Related Articles