আপনি যেহেতু এ লেখাটি পড়া শুরু করেছেন, তাহলে ধরেই নিতে পারি আপনি একজন পড়ুয়া। নিয়মিত বই যদি না-ও পড়েন, তাহলেও নিশ্চয়ই আপনি মাঝে মাঝেই বিভিন্ন পত্রিকা, ম্যাগাজিন অথবা রোর বাংলার মতো কন্টেন্ট সমৃদ্ধ বিভিন্ন ওয়েবসাইট থেকে বিভিন্ন ফিচার আর্টিকেল পড়ে থাকেন। কিন্তু স্মার্ট ফোনের এ যুগে আপনার পাঠক মনকে তৃপ্তি দিতে, আপনার পড়ার অভিজ্ঞতাকে আরো আনন্দায়ক করতে অথবা আপনাকে উপযুক্ত লেখা খুঁজে পেতে সাহায্য করার জন্য যে চমৎকার কিছু অ্যাপ আছে, তার সবগুলোর সাথে কি আপনি পরিচিত?

চলুন পরিচিত হয়ে নিই এরকম কিছু অ্যাপের সাথে, যেগুলো নিঃসন্দেহে আপনাকে আরো ভালো পাঠক হিসেবে গড়ে তুলতে সাহায্য করবে। পাঠকদের জন্য বর্তমানে বিভিন্ন প্লাটফর্মের উপযোগী প্রচুর অ্যাপ থাকলেও এই আর্টিকেলে শুধুমাত্র সেসব অ্যাপের কথাই তুলে ধরা হয়েছে, যেগুলো আপনি ব্যবহার করতে পারবেন সম্পূর্ণ বিনামূল্যে।

গুডরিডস

Source: Goodreads

গুডরিডস (Goodreads) হচ্ছে পড়ুয়াদের সামাজিক গণমাধ্যম। আপনি নতুন কোনো বই পড়বেন কিনা, সিদ্ধান্ত নিতে পারছেন না? এই অ্যাপটি থেকে দেখে নিতে পারেন আপনরা বন্ধুরা কিংবা অন্যান্য পাঠকরা বইটি সম্পর্কে কী বলছে, অথবা পাঁচের মধ্যে বইটিকে কত রেটিং দিয়েছে। প্রায় সাড়ে ছয় কোটি ব্যবহারকারীর গুডরিডসের মূল ওয়েবসাইটটিতে সংযুক্ত বই আছে প্রায় ২০০ কোটি, আর রিভিউ আছে প্রায় ছয় কোটি ৮০ লক্ষ।

গুডরিডস অ্যাপের মাধ্যমে আপনি যেকোনো বইয়ের রেটিং ও রিভিউ দিতে পারবেন, আপনার নিজস্ব পড়া এবং পড়তে চাওয়া বই সমূহের ভার্চুয়াল লাইব্রেরি তৈরি করতে পারবেন, যেকোনো বই সম্পর্কে দলবদ্ধ আলোচনায় অংশ নিতে পারবেন এবং আপনার বন্ধুরা কী কী বই পড়ছে তা জানতে পারবেন। অ্যাপটির মাধ্যমে আপনি যেকোনো বইয়ের হার্ডকপি পেলে তার বারকোড স্ক্যান করেই বইটিকে আপনার পড়তে চাওয়ার লিস্টে যোগ করে রাখতে পারবেন। অ্যাপটি অ্যান্ড্রয়েড এবং আইফোন উভয় প্লাটফর্ম থেকে ব্যবহার করতে পারবেন।

ওয়াটপ্যাড

Source: Wattpad Blog

ওয়াটপ্যাডকে (Wattpad) বলা যায় বইয়ের ইউটিউব। লেখক এবং পাঠকদের অপূর্ব মিলনমেলা এটি। আপনি এখানে উঠতি লেখকদের কোটি কোটি বই সম্পূর্ণ বিনামূল্যে পড়তে পারবেন। এছাড়া আপনি নিজেও যদি লেখক হয়ে থাকেন, তাহলে নিজের বইও এখানে আপলোড করতে পারবেন। লেখার নিচে মন্তব্য করার সুযোগ থাকায় নতুন লেখক এবং পাঠক উভয়ের মধ্যে সামাজিক যোগাযোগের জন্য চমত্কার একটি মাধ্যম এটি। লেখা সেভ করে পরবর্তীতে অফলাইনে পড়ার সুযোগও আছে এ অ্যাপে।

ওয়াটপ্যাডে পছন্দের লেখকদেরকে অনুসরণ করার মাধ্যমে তাদের লেখা প্রকাশিত হওয়ামাত্রই সেগুলো পড়ার সুযোগ পাবেন এবং লেখকের সাথে সরাসরি যোগাযোগও করতে পারবেন। ওয়াটপ্যাডে অনেক বিশ্ববিখ্যাত লেখকেরও অ্যাকাউন্ট আছে। ফলে তাদের নতুন বইগুলোর সংবাদ, নমুনা অধ্যায়, কিংবা তাদের নিজস্ব অভিজ্ঞতাও পড়ার সুযোগ পাওয়া যায় এখান থেকে। মূল ওয়েবসাইট ছাড়াও অ্যান্ড্রয়েড অথবা আইওএস প্লাটফর্ম থেকে অ্যাপটি ব্যবহার করা যায়।

ফ্রি বুকস

Source: Free Books

ফ্রি বুকস (Free Books) নামটি শুনতে যা মনে হচ্ছে, বাস্তবে এটি ঠিক তা-ই। যেকোনো ক্লাসিক্যাল বই পড়ার জন্য এ অ্যাপটি অতুলনীয়। এর ওয়েবসাইটে দেওয়া তথ্য অনুযায়ী এতে সর্বমোট ৫১,৩০৫টি বই আছে, যা আপনি পড়তে পারবেন সম্পূর্ণ বিনামূল্যে। এছাড়াও এতে আছে ৫,১৯৯টি অডিও বুক, যা আপনি বিনামূল্যে ডাউনলোড করে শুনতে পারবেন।

অ্যাপটিতে অভিধান সংযুক্ত আছে, ফলে কয়েক শত বছরের পুরানো ক্লাসিক্যাল বইয়ের কোনো শব্দ অপরিচিত ঠেকলেও সহজেই তার অর্থ জেনে নিতে পারবেন। অধিকাংশ বইয়ের সাথেই এর মূল প্রচ্ছদ এবং বইটি সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত বর্ণনা সংযুক্ত আছে। ব্যবহার করতে পারবেন অ্যাপটির অ্যান্ড্রয়েড অথবা অ্যাপল ভার্সন।

পকেট

Source: Pocket

আপনি যদি বিভিন্ন পত্রিকা, সাময়িকী এবং ওয়েবসাইটের কন্টেট পড়তে পছন্দ করেন, কিন্তু পকেট (Pocket) অ্যাপটি ব্যবহার না করেন, তাহলে নিঃসন্দেহে আপনি চমৎকার একটি অ্যাপ ব্যবহার করার অভিজ্ঞতা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। বিভিন্ন ওয়েবসাইটে বা ফেসবুকে ব্রাউজের সময় প্রায়ই আপনার সামনে চমৎকার কিছু লেখা এসে হাজির হতে পারে, কিন্তু সে মুহূর্তে লেখাটি পড়ার মতো সময় আপনার না-ও থাকতে পারে। পকেট অ্যাপটির মাধ্যমে আপনি এ ধরনের লেখাগুলো সংরক্ষণ করে রাখতে পারবেন এবং পরবর্তীতে সময়মতো পড়তে পারবেন।

পকেট অ্যাপটির সবচেয়ে বড় সুবিধা হচ্ছে, একই অ্যাকাউন্ট আপনি একই সাথে বিভিন্ন প্লাটফর্ম থেকে চালাতে পারবেন। ফলে কোনো লেখা মোবাইল ফোন থেকে সেভ করে পরে কম্পিউটারে বসে অথবা কম্পিউটার থেকে সেভ করে পরে মোবাইল ফোন থেকেও পড়তে পারবেন। লেখাগুলো কম্পিউটারে বা মোবাইল ফোনের মেমোরিতে সংরক্ষিত হবে, ফলে পরবর্তীতে ইন্টারনেট কানেকশন না থাকলেও সেগুলো পড়তে পারবেন। পকেট ব্যবহারকারী বিখ্যাত ব্যক্তিদেরকে অনুসরণ করার মাধ্যমে আপনি তাদের সুপারিশ করা বিভিন্ন লেখার সন্ধানও পেতে পারবেন। অ্যাপটির অ্যান্ড্রয়েড এবং আইফোন সংস্করণ ছাড়াও এর ওয়েব সাইট থেকে বিভিন্ন ব্রাউজারের এক্সটেনশন ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

ফিডলী

Source: Feedly

ফিডলী (Feedly) মূলত নিউজ সংগ্রাহক অ্যাপ। এই জাতীয় অ্যাপ অনেক আছে, তবে এটি সবচেয়ে জনপ্রিয়গুলোর মধ্যে একটি। ভিন্ন ভিন্ন ওয়েবসাইট বা অ্যাপে গিয়ে অথবা ফেসবুক থেকে নিউজ পড়ার পরিবর্তে আপনি এই একটি অ্যাপের মাধ্যমেই প্রায় সবগুলো বিখ্যাত পত্রিকা, ম্যাগাজিন বা ওয়েবসাইটে প্রকাশিত আর্টিকেলগুলো পড়তে পারবেন। পত্রিকার নামানুসারে আর্টিকেলগুলো ব্রাউজ করতে পারবেন এবং পরবর্তীতে অফলাইনে পড়ার জন্য সেভ করেও রাখতে পারবেন।

ফিডলীর একটি বড় সুবিধা হচ্ছে এর ফিল্টার অপশন। ধরুন আপনার বিনোদন জগত সম্পর্কে তেমন কোনো আগ্রহ নেই। আপনি চান না প্রতিটি পত্রিকার বিনোদন জগতের আর্টিকেলগুলো এসে আপনার ফিডে ভিড় করুক। সেক্ষেত্রে আপনি ফিল্টার অপশনে গিয়ে বিনোদন নিউজ সম্পর্কিত বিভিন্ন কী-ওয়ার্ড বসিয়ে দিতে পারবেন। পকেটের মতোই এই অ্যাপটিও অ্যান্ড্রয়েড, আইফোন কিংবা ব্রাউজার থেকে ব্যবহার করতে পারবেন।

ফ্লিপবোর্ড

Source: Flipboard

ফ্লিপবোর্ডও (Flipboard) অনেকটা ফিডলীর মতোই নিউজ সংগ্রাহক। কিন্তু ফিডলীর সাথে এর পার্থক্য হচ্ছে, এখানে আপনাকে বিভিন্ন পত্রিকা বা ওয়েবসাইটে সাবস্ক্রাইব করতে হবে না। আপনি পছন্দের কিছু টপিক বাছাই করে দিলে অ্যাপটি নিজে থেকেই ঐ টপিকের জনপ্রিয় লেখাগুলো আপনার সামনে হাজির করবে। আপনি যদি পকেট অ্যাপটি ব্যবহার করেন, তাহলে ফিডলী এবং ফ্লিপবোর্ড দুটি অ্যাপের সাথেই পকেটকে সংযুক্ত করে নিতে পারবেন। ফলে এসব অ্যাপের মাধ্যমে সংরক্ষিত আর্টিকেল পরবর্তীতে পকেট থেকে অফলাইনে পড়তে পারবেন।

ফ্লিপবোর্ডকে বলা হয় অনলাইন ভার্চুয়াল ম্যাগাজিন। কারণ এর মাধ্যমে আপনি কোনো বিষয়ের উপর নিজের পছন্দের লেখাগুলোকে একত্রিত করে ভার্চুয়াল ম্যাগাজিন হিসেবে সংরক্ষণ বা প্রকাশ করতে পারবেন। অথবা অন্য কারো তৈরি ম্যাগাজিনও পড়তে পারবেন। ওয়েবসাইট, অ্যান্ড্রয়েড অথবা আইফোন থেকে ব্যবহার করতে পারবেন এটি।

লাইবিব

Source: Libib

অনলাইন না, যাদের সত্যিকার বইয়ের সংগ্রহ আছে, এই অ্যাপটি তাদের জন্য। আপনার ব্যক্তিগত লাইব্রেরির বইয়ের সংখ্যা যদি বেশ বড় হয়, তাহলে আপনি লাইব্রিটির একটি ডিজিটাল ক্যাটালগ তৈরি করে রাখতে চাইতেই পারেন। ঠিক সেই কাজটিই করবে এই অ্যাপটি। এর মাধ্যমে আপনি যেকোনো বইয়ের বারকোড স্ক্যান করলে অথবা ISBN কোড প্রবেশ করালেই বইটির নাম, প্রচ্ছদ, সংক্ষিপ্ত বিবরণ, রিভিউ প্রভৃতি স্বয়ক্রিয়ভাবে যুক্ত হয়ে যাবে ক্যাটালগটিতে।

এরপর আপনি যেকোনো সময় লেখকের নাম, বইয়ের ধরন বা অন্য যেকোনোভাবে বইগুলোকে সাজিয়ে নিতে পারবেন অথবা প্রয়োজনের সময় কোনো বই আপনার সংগ্রহে আগে থেকেই আছে কিনা, তা জেনে নিতে পারবেন। অ্যাপটির মাধ্যমে আপনি অন্যদের লাইব্রেরিতে থাকা বইয়ের সংগ্রহও দেখতে পারবেন এবং তাদের সাথে আলোচনা করতে পারবেন। ব্যবহার করতে পারবেন অ্যাপটির অ্যান্ড্রয়েড অথবা আইফোন ভার্সন।

লাইব্রিভক্স

Source: Librivox

ব্যস্ততার এ যুগে অনেকেই বই পড়ার সময় করে উঠতে পারেন না। কিন্তু দুশ্চিন্তার কি, যখন তাদের জন্য আছে অডিও বুক? পড়ার সময় না থাকলে গাড়ি চালানোর সময়, খাওয়ার সময়, বিশ্রাম নেওয়ার সময় আপনি অডিও বুকের মাধ্যমে বইয়ের লেখাগুলো শুনতে পারেন। লাইব্রিভক্স (Librivox) হচ্ছে এরকমই একটি অ্যাপ, যেখানে বিশ্বজুড়ে স্বেচ্ছসেবীরা পাবলিক ডোমেইনে থাকা বইগুলোর অডিও সংস্করণ তৈরি করেছে। বর্তমানে অ্যাপটিতে বইয়ের সংখ্যা প্রায় ১২,০০০।

যদিও লাইব্রিভক্সের অডিওর মান অডিবল বা এ জাতীয় অন্যান্য অ্যাপের মতো না, কিন্তু সম্পূর্ণ ফ্রি হওয়ার কারণে অ্যাপটি বেশ জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। এর ‘দ্য অ্যাডভেঞ্চার্স অফ টম সয়্যার’ বইটির অডিও বুকটি এ পর্যন্ত প্রায় ৫২ লক্ষ বার ডাউনলোড হয়েছে। ডাউনলোড করে অথবা অনলাইনে স্ট্রিমিং করে বইগুলো শোনা যায়। অ্যাপটির অ্যান্ড্রয়েড এবং আইফোন উভয় সংস্করণই আছে।

ফিচার ইমেজ- Businesswire