উইকিমিডিয়ার এন্টারপ্রাইজ সার্ভিস: তথ্য নিতে অর্থ গুনতে হবে গুগল, আমাজন ও এপলের মতো প্রতিষ্ঠানগুলোকে

উইকিপিডিয়ার কথা জ্ঞান অনুসন্ধানী লোক মাত্রই জানে। উইকিপিডিয়া হচ্ছে উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশনের অনেকগুলো উদ্যোগের মধ্যে একটি। উইকিপিডিয়া তথা উইকিমিডিয়া সবসময়ই ফ্রি ছিল সবার জন্য। যে কেউই অলাভজনক উদ্দেশ্যে উইকিপিডিয়া থেকে কোনো তথ্য কিংবা উইকিমিডিয়ার কোনো প্লাটফর্ম থেকে কোনো ছবি বা ভিডিও ব্যবহার করতে পারতো সবসময়। এ উদ্যোগ নিঃসন্দেহে অনেক মহৎ। কিন্তু টেক জগতের বড় বড় প্রতিষ্ঠান উইকিমিডিয়ার এই মুক্ত তথ্যকে ব্যবহার করে কামিয়ে নিচ্ছে শত শত মিলিয়ন ডলার। কিন্তু বিনিময়ে উইকিমিডিয়া পাচ্ছে না কিছুই। 

এ অসাম্যকে সমতায় আনতে উইকিমিডিয়া উদ্যোগ নিয়েছে একটা বোঝাপড়া করার। এবার উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশন নিজেই এর উইকিপিডিয়ার তথ্য থেকে এন্টারপ্রাইজ সেবা দেবার জন্য নামছে। 

পাঠকের মনে প্রশ্ন উদিত হতে পারে। তবে সব সন্দেহের মূলোৎপাটনে শুরুতেই জানিয়ে দিচ্ছি, আমাদের ব্যবহৃত চিরাচরিত উইকপিডিয়ার কোনো ধরনের নীতিগত, এমনকি ব্যবহারিক পরিবর্তনও করা হচ্ছে না। উইকিপিডিয়া জ্ঞানের ভাণ্ডার হিসেবে পূর্বে যেমন উন্মুক্ত উৎস ছিল, তেমনই থাকছে। এন্টারপ্রাইজ প্রজেক্টটি মূল উইকিপিডিয়ায় কোনো ধরনের ছড়ি ঘোরানোর কাজ করবে না। 

উইকিমিডিয়া এন্টারপ্রাইজ আবির্ভাবের পরিক্রমা
উইকিমিডিয়া এন্টারপ্রাইজ আবির্ভাবের পরিক্রমা; Image Source: Liam Wyatt

উইকিমিডিয়া এন্টারপ্রাইজ কীভাবে অপারেট করবে সেটা এখনো চূড়ান্ত হয়নি। তবে ২০২১ সালের শেষ নাগাদ হয়ত এই সেবা হাজির হয়ে যাবে, এ ঘোষণা করে দিয়েছে। বড় প্রযুক্তি কোম্পানিদের এবার হয়ত উইকিমিডিয়ার তরফ থেকে ভারী বিল পেতে হতে পারে। হয়ত তথ্যপ্রযুক্তির দুনিয়ায় প্রতিযোগিতা আরেক দফা ভারসাম্যের অদল বদল ঘটতে যাচ্ছে। 

তথ্যভিত্তিক ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলো নানাভাবে উইকিপিডিয়াকে ব্যবহার করে থাকে। গুগল নির্দিষ্ট বিষয়ে ব্যবহারকারীদের অনুসন্ধান ফলাফলে একটা এক নজরে তথ্যকার্ড দেখিয়ে থাকে, যার নাম গুগল নলেজ গ্রাফ। অধিকাংশ ক্ষেত্রে এই নলেজ গ্রাফ তৈরি হয় উইকিপিডিয়া থেকে তথ্য নিয়ে।

গুগল অনুসন্ধানের ডানে সিরাজউদ্দৌলার উপর গুগলের নলেজগ্রাফ, স্বয়ংক্রিয়ভাবে তৈরি হয়েছে উইকিপিডিয়ার তথ্য ব্যবহার করে; Image Source: Author

ডিজিটাল সোসাইটি সম্পর্কিত একটি গবেষণা সংঘের প্রতিষ্ঠাতা এবং একজন বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাপক দারিউস জেমিয়েলনিয়াক বলেন, অধিকাংশ গুগল ব্যবহারকারী জানেই না, তাদের করা বহু প্রশ্নের উত্তর আসে নলেজগ্রাফে, উইকিপিডিয়া থেকে। এই না জানার পরিসমাপ্তি হলো— উইকিপিডিয়ার জনপ্রিয়তা হ্রাস, যার ফলে উইকিপিডিয়ার নিজস্ব নতুন অনুদান গঠনে, এবং এমনকি নতুন স্বেচ্ছাসেবী তৈরিতে ব্যর্থ করছে। আর গুগল অবশ্য একা না, ভয়েস এসিস্ট্যান্ট আমাজনের আলেক্সা, এপলের সিরি এরাও একইভাবে উইকিপিডিয়ার তথ্য গণহারে ব্যবহার করছে। ওয়েব প্ল্যাটফর্মগুলোকে যেমন ভুল তথ্য প্রদর্শনের সাথে লড়াই করতে হচ্ছে, তেমনি উইকিপিডিয়াও হয়ে উঠেছে সত্য যাচাই করার বৃহৎ উৎস।

উইকিপিডিয়ার বিনামূল্যের তথ্য পরিষেবা ব্যবহারের কৃতজ্ঞতায় কিছু কিছু কোম্পানি উইকিপিডিয়াকে অনুদানের প্রস্তাবনা দিয়ে থাকে, আবার কোনো কোনোটি উইকিপিডিয়াকে কোনো ব্যাপারে জানানোর তোয়াক্কা না করেই নিজেদের ব্যবসা দাঁড় করিয়ে ফেলেছে। অনেকটা যেন উইকিপিডিয়া দিয়েই চালানো উদ্যোগ নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে।

বর্তমান বিশ্বে ট্রাফিকের বিচারে ১৩তম অবস্থানে আছে উইকিপিডিয়া। অলাভজনক প্রতিষ্ঠান হিসেবেই কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছিল উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশনের অধীনে থাকা ১২টি সিস্টার প্রজেক্টের সবগুলো। এই সুবিশাল ওয়েবসাইট এবং এর বিশ্বব্যাপী কার্যক্রম সবকিছুর সাথে চাকুরি সম্পর্কিত পদে কাজ করছেন প্রায় ৪০০ জন কর্মচারী। বর্তমানে উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশনের ১৩০ মিলিয়ন ডলার বাজেট আসে ব্যবহারকারীদের অনুদান এবং উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশনে অনুমোদিত অর্থ থেকে। একটি বড় প্রশ্ন উঁকি দেয়ার সম্ভাবনা থাকছে, উইকিপিডিয়ার বিশাল স্বেচ্ছাশ্রমী বাহিনী এতে কী ধরনের প্রতিক্রিয়া দেখাবে।

উইকিমিডিয়া প্রজেক্টসমূহ পূর্বেও যেমন বিনামূল্য ছিল, ভবিষ্যতেও তেমনি বিনামূল্য থাকবে। মুক্তভাবে বিশ্বব্যাপী জ্ঞান লাভ করার সুযোগ ফাউন্ডেশনের মূল উদ্দেশ্য ছিল সবসময়ই। এই এক্সেস বা সুযোগ কেবলমাত্র ব্যক্তিই পেত তা না, মেশিন বা যন্ত্রও পরিষেবাগ্রহণের এই এক্সেস পেত। উইকিমিডিয়া কন্টেন্ট বিনামূল্যে বিভিন্ন রূপে পুনর্ব্যবহারের সুযোগ যেমন ছিল তেমনই থাকবে।

এই সুযোগের ফলে, প্রায়শই, উদ্দেশ্যমূলকভাবে উইকিমিডিয়ার কনটেন্টগুলো লাভজনক প্রতিষ্ঠান ব্যবহার করে তাদের নিজস্ব ব্যবসায়িক মডেল অনুযায়ী, এবং এ থেকে আবার আয়ও করে থাকে। স্বেচ্ছাসেবী কর্পোরেট অনুদান ছাড়া, এসব কোম্পানির আয় থেকে উইকিমিডিয়া কখনো কোনো ফিরতি লাভ পায়নি। এ ব্যাপারটি স্বীকার করেই, জ্ঞান উন্মুক্ত করার আন্দোলনকে আরো টেকসই করতে— উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশনকে এন্টারপ্রাইজ লেভেলের এপিআই (API) তৈরিতে মনোনিবেশ করায়। লাভজনক-উদ্দেশ্যের ব্যবহারকারীদের জন্য, বর্তমান ধরনের আয়ের উপর নির্ভরশীলতা এড়াতে একই সাথে প্রোডাক্ট ডিজাইন এবং উন্নয়নে অন্যান্য অপ্রয়োজনীয় বাহ্যিক প্রভাব হ্রাসে উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশনকে উইকিমিডিয়ার মুভমেন্ট স্ট্র্যাটেজি প্রসেস নির্দেশনা দেয়।

উইকিমিডিয়া এন্টারপ্রাইজ মডেল; Image Source: Wikimedia.org

এন্টারপ্রাইজ প্রজেক্ট টিম লাভজনক উদ্দেশ্যের (ফর-প্রফিট রিইউজার) ব্যবহারকারীদের জন্য বর্তমানে যেসব সেবা এবং সফটওয়্যার উন্মুক্তভাবে দেয়া হয়, এর বাইরে অতিরিক্ত প্রোডাক্ট, সেবা এবং সিস্টেমের প্রয়োজনীয় উপকরণ তৈরিতে কাজ করছে। এখন যেসব বিনামূল্যে রয়েছে, কোম্পানিগুলো তা খরচ ব্যতিরেকেই চালিয়ে যেতে পারবে। এন্টারপ্রাইজ এপিআই থেকে আসা পুরো আয়ই ব্যবহার করা হবে, উইকিমিডিয়ার মূল লক্ষ্যকে সামনে রেখে— উদাহরণস্বরূপ, উইকিমিডিয়ার বিভিন্ন প্রোগ্রাম পরিচালনা করা অথবা উইকিমিডিয়ার সক্ষমতা বৃদ্ধি করায়।

এই প্রকল্পটি এ ফাউন্ডেশনের এক নতুন ধরনের কার্যক্রমের সূচনা করবে। এখন পর্যন্ত যা দাঁড় করানো হয়েছে তা করতে উইকিমিডিয়া সম্প্রদায়ের সদস্য, উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশনের বোর্ড এবং স্টাফ, গবেষক, এবং পুনর্ব্যবহারকারীদের প্রাথমিক সাক্ষাৎ নেয়া হয়েছে। এন্টারপ্রাইজ প্ল্যাটফর্মটি মূলত বড় স্কেলের ব্যবহারকারীদের জন্য, যারা অনেক তথ্য নিয়ে কাজ করবে। এক্সেস কন্ট্রোল, অন্যান্য সফটওয়্যারের ব্যবহার, এবং ডকুমেন্ট ব্যবস্থাপনা ইত্যাদি ফিচারের উপর জোর দেওয়া হবে এন্টারপ্রাইজে। তবে একজন উইকিমিডিয়া সম্পাদনাকারীর সম্পাদনা অভিজ্ঞতায় এটি কোনো প্রভাব বিস্তার করতে যাচ্ছে না। পূর্বের মতোই একজন সম্পাদনাকারী বা তার বট কাজ করতে পারবে। 

বিভিন্ন ফাইল বৃহৎ পরিসরে কীভাবে ব্যবহার করা যাবে তার একটি নমুনা চিত্র। উল্লেখ্য, ওকাপি (Okapi) হলো এন্টারপ্রাইজ প্রজেক্টের জন্য প্রাথমিকভাবে দেয়া পূর্বনাম; Image Source: Wikimedia.org

উইকিপিডিয়া এন্টারপ্রাইজ অর্থমূল্য সাপেক্ষে ডেভেলাপমেন্ট টুলস (সফটওয়্যার) এবং সেবার যোগান দেবে যাতে বিভিন্ন কোম্পানি এবং সংস্থার জন্য উইকিমিডিয়ার তথ্য ভোগ এবং পুনর্ব্যবহার করতে সহজ হয়। 

মূল্যভিত্তিক সেবার দিকে অগ্রসরের কারণ

টেকসইকরণ

দুই দশক ধরে গড়ে তোলা জ্ঞান উন্মুক্ত করার আন্দোলনের ভবিষ্যতের লক্ষ্য নির্ধারণে উইকিমিডিয়ার ২০৩০ স্ট্র্যাটেজি নিরূপণ করা হয়েছিল। এই কৌশলের দিক-নির্দেশনায় উঠে আসে উইকিমিডিয়া কী কী চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে চায়। এই আন্দোলনের লক্ষ্য এমন একটা প্ল্যাটফর্ম প্রস্তুত করা যা বিশ্বকে উন্মুক্তভাবে জ্ঞান সরবরাহ করবে। এই বিশাল চ্যালেঞ্জের উপাদান হিসেবে আছে প্রযুক্তিগত ঘাটতি, জ্ঞানগত ঘাটতি, এবং জ্ঞান ভোগ করার (access) ঘাটতি।

উইকিমিডিয়ার সম্পত্তিগত দৃষ্টিকোণ থেকে, এই উদ্যোগ হলো আসন্ন দশকে উইকিমিডিয়ার জ্ঞান উন্মুক্তকরণ আন্দোলনকে বাঁচিয়ে রাখার জন্য। যেকোনো বিপত্তিকে মোকাবিলা করা এবং লক্ষ্যের দিকে অগ্রসর হতে আরো দৃঢ় অবস্থান তৈরি করা, যে মহৎ উদ্দেশ্য ধারণ করা হয়েছিল ২০ বছর আগে ২০০১ এ। ২০৩০ এর লক্ষ্য পূরণে উইকিমিডিয়ার আরো সহায়তা, সহকর্মী এবং মিত্র প্রয়োজন। এই সমর্থন বৈচিত্র্যপূর্ণ, অবাধ, কোনোধরনের কর্মসূচির প্রভাব নিরপেক্ষ রাখাই হবে উক্ত লক্ষ্যের চাবিকাঠি। উইকিমিডিয়ার জ্ঞান উন্মুক্ত করার আন্দোলন যাতে এখন এবং ভবিষ্যতেও নিজের পায়ে দাঁড়াতে পারে, টেকসই হয়ে থাকে এজন্যই এটি গুরুত্বপূর্ণ।

নিজস্ব অর্থায়ন

উইকিমিডিয়া এপিআই সার্ভিস স্বনির্ভর করতে পারলে কাস্টমারদের জন্য পূর্ণাঙ্গ সহায়তার নিয়োগ দেয়া যাবে। দীর্ঘমেয়াদে, উইকিমিডিয়ার বিদ্যমান পরিকাঠামো এবং সহকর্মীরা উইকিমিডিয়ার সম্প্রদায় এবং উন্মুক্তকরণ আন্দোলনের প্রয়াসে মনোযোগ দিতে পারবে। এন্টারপ্রাইজ প্ল্যাটফর্ম নির্মাণের খরচ, ব্যয়, চলমান ব্যবস্থাপনা, এবং যেকোনো বাড়তি খরচ পূরণ করা হবে নিজস্ব আয় থেকে।

উইকিমিডিয়ার স্বাধীনতা বজায় রাখা

উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশন প্রাথমিকভাবে অনুদান পেয়ে থাকে বিশ্বব্যাপী এর পাঠকদের কাছ থেকে। এর পরিবেশিত ব্যানার এবং ইমেইলের আবেদনের প্রেক্ষিতে গড়পড়তায় অনুদানকারী পাঠকের কাছ থেকে ১৫ ডলার অনুদান পাওয়া যায়। এই অনুদানের মডেলটিই ফাউন্ডেশনের উত্তরোত্তর বৃদ্ধি এবং স্বাধীনতা রক্ষার রসদ জুগিয়ে যাচ্ছে। এ বছর আনুমানিক ৮ মিলিয়ন পাঠক উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশনে অনুদান দিয়ে অবদান রাখবে।

উইকিমিডিয়া একেবারে ব্যর্থহীনভাবে, স্পষ্ট করে বলে থাকে: এই আন্দোলনে পাওয়া শ্রেষ্ঠ এবং সর্বোচ্চ গুরুত্বপূর্ণ সমর্থন হচ্ছে এই অনুদান। এই স্বাধীনতার জন্যই পাঠকদের সেবাদানের কাজটি নির্বিঘ্নে করে যাওয়া সম্ভব হচ্ছে। উইকিমিডিয়া এন্টারপ্রাইজ যদি এই অনুদানকে ঢেকে দেয় তাৎপর্যপূর্ণভাবে, তবে অবশ্যই উইকিমিডিয়া তার কমিউনিটির সাথে এ বিষয়ে আলোচনা করবে এবং প্রয়োজনে এ থেকে বেরিয়ে আসবে মূল আন্দোলনকে প্রভাবমুক্ত রাখতে।

এটি অনুধাবন করাও গুরুত্বপূর্ণ যে, ছোট অনুদানের মডেলটি আংশিকভাবে ডেস্কটপ এবং মোবাইল ট্রাফিকের উপর নির্ভরশীল। এমনকি ইন্টারনেটে বিশ্বব্যাপী অ্যাক্সেস বাড়তে থাকার পরও, উইকিমিডিয়ার পাঠকসংখ্যা বিগত কয়েক বছর ধরে কার্যত প্রায় স্থিতিশীল থাকছে। অন্যতম বড়সড় একটা পরিবর্তন  হলো, উইকিমিডিয়া কনটেন্টের সাথে যে ক্রমবর্ধমান ক্রিয়াকলাপ হওয়াটা স্বাভাবিক চোখে দেখার কথা ছিল, উল্লেখযোগ্য হারে এখন উইকিমিডিয়া ওয়েবসাইটগুলোতে হচ্ছে না।

২০১৫ সাল থেকে উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশন এই পরিবর্তনটি চিহ্নিত করে। তখন থেকেই আশংকা শুরু হয় এর দীর্ঘমেয়াদী এবং চলমান কার্যক্রমকে চালিয়ে নেয়ার সক্ষমতাকে মারাত্মকভাবে প্রভাবিত করতে পারে। যত বেশি মানুষ উইকিমিডিয়ার নিজস্ব ওয়েবসাইটের মাধ্যমে কনটেন্টগুলো ব্যবহার করবে, তার ফলে এন্টারপ্রাইজ এপিআই তত বেশি সাপোর্ট করতে পারবে। অনুদানের উৎসগুলো যত বহুমুখী হবে, ততই উইকিমিডিয়ার জ্ঞান উন্মুক্তকরণের প্রচেষ্টা দৃঢ় হবে, এমনকি যদি সেক্ষেত্রে wikipedia.org ডোমেইনের ট্রাফিক হ্রাস পায়ও। প্রকল্পটি তাই জ্ঞান উন্মুক্তকরণ আন্দোলনের আর্থিক স্থায়িত্ব নিশ্চিত করতে সহায়তা করে।

বিনামূল্য জ্ঞানসেবায় বাণিজ্যিক বিনিয়োগ চালু রাখা

বৃহৎ লাভজনক উদ্দেশ্যের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো উইকিমিডিয়া যে বিনামূল্য জ্ঞানসেবা দিচ্ছে তার প্রতি স্বীকৃতি দেয়ার মনোভাব আনা গুরুত্বপূর্ণ। উইকিমিডিয়ার এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর ক্যাথারিন মাহের মনে করেন, “সকলে উইকিপিডিয়ার কন্টেন্ট বা জ্ঞান বিনামূল্যে ব্যবহার করবে এটা আমাদের লক্ষ্যই। সবাই ব্যবহার করবে, নিজেদের মাঝে ভাগ করবে, অবদান রেখে এটাকে সকলের একটা সম্মিলিত মিশ্র প্রচেষ্টা হিসেবে গড়ে তুলবে। পাশাপাশি, আমরা বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকেও অনুপ্রাণিত করি যারা উইকিমিডিয়ার কন্টেন্ট ব্যবহার করে তারাও যেন কিছু ফিরতি অবদান রাখার মাধ্যমে একে টিকিয়ে রাখার অগ্রযাত্রায় শামিল হয়।” কোম্পানিগুলোর মধ্যে যেগুলো কর্পোরেশন তাদের অনুদান মাত্র ৪ শতাংশ। শীর্ষে থাকা কর্পোরেট দাতাদের তালিকা তাই একটু অবাক করার মতোই। ২০১৭-২০১৮ অর্থবছরের শীর্ষ অনুদান দাতারা: 

  1. Google (১ মিলিয়ন ডলার)
  2. Humble Bundle (৪৫৬,০০০ ডলার)
  3. Craigslist Foundation (২৫০,০০০ ডলার)
  4. Cards Against Humanity (৩৫,০০০ ডলার)

বৃহৎ স্কেলে লাভজনক উদ্দেশ্যের ব্যবহারকারীদের সাথে উইকিমিডিয়া এন্টারপ্রাইজের চুক্তির ফলে উইকিমিডিয়ার আন্দোলনই আরো যথাযথভাবে এগিয়ে যাবে। এর ফলে এন্টারপ্রাইজে সাধারণ পাঠকের অনুদান ব্যবহার না করার আস্থা আরো জোরদার হয়।

আশা করা যাচ্ছে জ্ঞানকে উন্মুক্ত করার প্রক্রিয়ায় এবং ২০৩০ এর লক্ষ্য অর্জনের মাধ্যমে উইকিমিডিয়া এন্টারপ্রাইজ জ্ঞানকে সকলের কাছে বিনামূল্যে পৌঁছে দেয়ার অগ্রযাত্রায় রাখবে ইতিবাচক ভূমিকা। এন্টারপ্রাইজ প্রজেক্টটির হোমপেইজ enterprise.wikimedia.com চট করে একটা পার্থক্য ধরে ফেলতে পারলে পাঠককে অভিনন্দন। উইকিমিডিয়ার সব সাইটের ডোমেইন .org কিন্তু এটির ক্ষেত্রে .com। যেহেতু উইকিমিডিয়া এন্টারপ্রাইজ সম্পূর্ণ আলাদা পরিকাঠামো, পৃথক নীতি ও নিয়ন্ত্রণে চলবে তাই যেকোনো ধরনের অস্পষ্টতা দূর করতে org ডোমেইনের অধীনে রাখেনি। অর্থাৎ, ধারণায়ও যেন মানুষের কাছে দুটো গুলিয়ে না যায় সেজন্যই এত সতর্কতা।

Related Articles