শহীদ স্মরণে তারুণ্যের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা

“একুশ মানে মাথা নত না করা”

এই স্লোগানকে সামনে রেখে ২১শে ফেব্রুয়ারি মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ভাষা শহীদদের স্মরণে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার আয়োজন করে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের অরাজনৈতিক, সেচ্ছাসেবী ও জনকল্যাণমূলক সংগঠন তারুণ্য। সকাল ১০টায় ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান মিলনায়তনে উক্ত প্রতিযোগিতা শুরু হয়, যেখানে বিশ্ববিদ্যালয়ের পার্শ্ববর্তী ১১টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রায় ১৫০ জন শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেছিলো। ভাষা শহীদ আবদুস সালাম দল (১ম এবং ২য় শ্রেণী), ভাষা শহীদ আবদুল জব্বার দল (৩য় এবং ৪র্থ শ্রেণী), ভাষা শহীদ আবুল বরকত দল (৫ম শ্রেণী) ও ভাষা শহীদ শফিউর রহমান দল (পদমদী প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়)- এই চার দলে বিভক্ত করে প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়।

© তারুণ্য

অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন তারুণ্যের উপদেষ্টা প্রফেসর ড. মো: শাহজাহান মন্ডল। এ সময় উপস্থিত ছিলেন তারুণ্যের সভাপতি মো: মমিনুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক ওয়াহিদ জুবেরী সিজার, সহ-সভাপতি একরামুল ইসলাম সৈকত, সাংগঠনিক সম্পাদক আরমান রেজা জয়, কোষাধ্যক্ষ মোশাররফ হোসেন বাপ্পি, সদস্য সচিব নাজমিন নাহার লাবণী, প্রচার সম্পাদক তাইয়েব হোসেন জনী, শিশু শিক্ষা সম্পাদক মো: রাজিবুল ইসলাম, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক শাহানাজ শারমিন ইমা, সমাজকল্যাণ সম্পাদক মো: জুবায়ের ফারুক সহ তারুণ্যের অন্যান্য সদস্যবৃন্দ।

© তারুণ্য

অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেন তারুণ্যের সদস্য তারেক আল সাকিব এবং নাজমিন নাহার লাবণী। পবিত্র কুরআন থেকে তিলাওয়াত ও পবিত্র গীতা পাঠ দিয়ে শুরু হয় অনুষ্ঠান। এরপর সবাই দাঁড়িয়ে জাতীয় সংগীত গাওয়া হয়। এরপর শুভেচ্ছা বক্তব্যে সাধারণ সম্পাদক ওয়াহিদ জুবেরী সিজার তারুণ্যের কার্যক্রম সবার কাছে উপস্থাপন করেন। তিনি আরো বলেন, “আমারা চাই আমাদের নতুন প্রজন্ম মননশীলতায় বিকশিত হোক। তাদের প্রতিভাগুলো ফুটে উঠুক বিভিন্ন কাজের মাধ্যমে।” চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক এবং তারুণ্যের উপদেষ্টা প্রফেসর ড. মো: শাহজাহান মন্ডল।

© তারুণ্য

পঁয়তাল্লিশ মিনিটের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগীতার পর শুরু হয় ছোট্ট সোনামণিদের কবিতা আবৃত্তি। চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার প্রতিটি গ্রুপ থেকে ৩ জন করে মোট ১২ জনকে গল্পের বই, ক্রেস্ট ও রংপেন্সিল দিয়ে পুরস্কৃত করা হয়। বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার তুলে দেন তারুণ্যের উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. মো: শাহজাহান মন্ডল, তারুণ্যের সভাপতি মো: মমিনুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক ওয়াহিদ জুবেরী সিজার। প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী সকল প্রতিযোগীকে রংপেন্সিল উপহার দেয়া হয় এবং সবার জন্য নাস্তার ব্যবস্থা করা হয়।

© তারুণ্য

সমাপনী বক্তব্যে সভাপতি মো: মমিনুল ইসলাম বলেন, “এই চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগীতার মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের মধ্যে মহান শহীদ দিবস ও আমাদের ভাষার রক্তাক্ত ইতিহাসের চেতনা উজ্জীবিত হবে। তাদের নিজেদের প্রতি আত্মবিশ্বাস বাড়বে এবং চিত্রাঙ্কন সহ এমন আরো সৃজনশীল কাজের প্রতি উৎসাহী হবে।” এর আগে ২১শে ফেব্রুয়ারি রাত ১২:০১ মিনিটে ভাষা শহীদদের স্মরণে শহীদ মিনারে শ্রদ্ধাঞ্জলী অর্পন করে তারুণ্য এর উপদেষ্টামন্ডলী ও সদস্যবৃন্দ।

ফিচার ছবি © তারুণ্য

Related Articles