• তিন ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ভারত নারী ক্রিকেট দলকে ৬০ রানে পরাজিত করেছে অস্ট্রেলিয়া।
  • সিরিজে ভারতের বিপক্ষে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে আছে অস্ট্রেলিয়া।
  • অস্ট্রেলিয়ার হয়ে নিকোল বল্টন, এলিস পেরি এবং বিথ মুনি অর্ধশতক হাঁকান।
  • ভারতের হয়ে সর্বোচ্চ ৬৭ রানের ইনিংস খেলেন ওপেনার স্মৃতি মান্দানা।

তিন ম্যাচের সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে থাকা অস্ট্রেলিয়াকে টসে জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানায় ভারত। ব্যাট করতে নেমে নিকোল বল্টন, এলিস পেরি এবং বিথ মুনির অর্ধশতকের উপর ভর করে স্কোরবোর্ডে বড় সংগ্রহ জমা করে অস্ট্রেলিয়া।

দ্বিতীয় ওয়ানডেতেও ম্যাচ সেরার পুরস্কার জেতেন নিকোল বল্টন; Source: Icc-Cricket.com

প্রথম ওয়ানডেতে যেখানে শেষ করেছিলেন, সেখান থেকে শুরু করেছেন অস্ট্রেলিয়ার ওপেনার নিকোল বল্টন। উদ্বোধনী উইকেট অ্যালিসা হিলির সাথে ৫৪ রান এবং দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে মেগ ল্যানিংয়ের সাথে ৭৬ রান করেন তিনি। দলীয় ১৪৩ রানে তৃতীয় ব্যাটসম্যান হিসাবে সাজঘরে ফেরার আগপর্যন্ত ৮৮ বলে ১২টি চারের মারে ৮৪ রানের অনবদ্য ইনিংস খেলেন বল্টন।

ব্যাট হাতে অপরাজিত ৭০ রানের ইনিংস খেলার পর বল হাতে দুই উইকেট শিকার করেন এলিস পেরি; Source: Icc-Cricket.com

বল্টন আউট হওয়ার পর অস্ট্রেলিয়ার রানে চাকা সচল রাখেন এলিস পেরি এবং বিথ মুনি। এই দুজন চতুর্থ উইকেট জুটিতে ৯৬ রান যোগ করেন। এলিস পেরি দেখেশুনে খেললেও বিথ মুনি আক্রমণাত্মকভাবে ব্যাট করেন। শিখা পান্ডের বলে আউট হওয়ার আগে ৪০ বলে নয়টি চারের সাহায্যে ৫৬ রানের ইনিংস খেলেন মুনি।

অলরাউন্ডার এলিস পেরি ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ২৫তম অর্ধশতক হাঁকিয়ে ৭০ বলে ছয়টি চার এবং দুটি ছয়ের সাহায্যে অপরাজিত ৭০ রানের ইনিংস খেলেন। শেষপর্যন্ত নয় উইকেটে ২৮৭ রান সংগ্রহ করে অস্ট্রেলিয়া। ভারতের হয়ে ৬১ রানের বিনিময়ে তিন উইকেট শিকার করেন শিখা পান্ডে।

ওপেনার স্মৃতি মান্দানা সর্বোচ্চ ৬৭ রান করেন; Source: Icc-Cricket.com

অস্ট্রেলিয়ার দেওয়া ২৮৮ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ভারতকে শুভসূচনা এনে দিয়েছিলেন স্মৃতি মান্দানা। তবে তার সঙ্গী পুনম রাউত ক্রিজে স্বাচ্ছন্দ্যে ছিলেন না। প্রথম ১০ ওভারে তার নামের পাশে মাত্র চার রান ছিল। তবে মান্দানার ঝোড়ো ব্যাটিংয়ে খুব একটা চাপে ছিলেন না তিনি। মান্দানা মাত্র ৫৩ বলে ১২টি চার এবং একটি ছয়ের সাহায্যে ৬৭ রান করে যখন সাজঘরে ফেরেন, তখন ভারতের ১৭.৫ ওভারে ৮৮ রান ছিল। যার মধ্যে পুনমের রান ছিল মাত্র ২০। শেষপর্যন্ত বলের সাথে পাল্লা দিয়ে রান তুলতে গিয়ে ৬১ বলে ২৭ রান করে গার্ডনারের শিকারে পরিণত হন তিনি।

অসুস্থতার কারণে প্রথম ওয়ানডে মিস করা তারকা ব্যাটসম্যান মিতালি রাজ এবং দিপ্তি শর্মার জুটিতে ম্যাচেই ছিল ভারত। কিন্তু এলিস পেরি ১৫ রান করা মিতালিকে ফিরিয়ে দিলে রানের চাপে পড়ে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে ভারত। প্রথম ওয়ানডেতে নয় নাম্বারে নেমে ৫১ রান করা পূজা বস্ত্রাকর এই ম্যাচে ৩৩ বলে ৩০ রান করে প্রমাণ করলেন গত ম্যাচে তার ইনিংসটি অপ্রত্যাশিত সাফল্য ছিল না। পরের ম্যাচে ব্যাটিং পজিশনে উপরে ওঠার আশা করতেই পারেন তিনি।

তিন উইকেট শিকার করেন জেস জনাসেন; Source: Icc-Cricket.com

শেষপর্যন্ত তার ইনিংসটি শুধুমাত্র পরাজয়ের ব্যবধানই কমিয়েছে। জেস জনাসেন তিন উইকেট এবং ওয়েলিংটন ও পেরি দুটি করে উইকেট শিকার করলে ভারতকে ২২৭ রানে অল আউট করে ৬০ রানের জয় তুলে নেয় অস্ট্রেলিয়া। সিরিজের শেষ ম্যাচে অনুষ্ঠিত হবে আগামী রবিবার।

ফিচার ইমেজ: Twitter