জয় দিয়ে শুরু করলো জিম্বাবুয়ে, আয়ারল্যান্ড এবং আরব আমিরাত

  • আইসিসি বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে নিজেদের প্রথম ম্যাচে জয় পেয়েছে জিম্বাবুয়ে, আয়ারল্যান্ড এবং সংযুক্ত আরব আমিরাত।
  • ব্রেন্ডন টেইলর এবং সিকান্দার রাজার জোড়া শতকে নেপালকে ১১৬ রানে পরাজিত করে জিম্বাবুয়ে।
  • বৃষ্টি বিঘ্নিত ম্যাচে পাপুয়া নিউগিনিকে ৫৬ রানে হারিয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাত।
  • দিনের আরেক ম্যাচে নেদারল্যান্ডকে বৃষ্টি আইনে ৯৩ রানে পরাজিত করেছে আয়ারল্যান্ড।

বুলাওয়ের কুইন্স স্পোর্টস ক্লাব মাঠে নেপালের বিপক্ষে টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় জিম্বাবুয়ে। শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ব্যাটিং করেছিল জিম্বাবুয়ে। উদ্বোধনী উইকেট জুটিতে মাত্র ৭.১ ওভারে ৭৭ রান যোগ করেন সোলেমন মিরে এবং জুয়াও। মিরে ৪১ বলে ৫২ রান এবং জুয়াও ২৩ বলে ৪১ রান করে ফিরে গেলেও দলকে এগিয়ে নিয়ে যান ব্রেন্ডন টেইলর এবং সিকান্দার রাজা।

জোড়া শতক হাঁকান ব্রেন্ডন টেইলর এবং সিকান্দার রাজা ; Source: Icc-cricket.com

এই দুজন পঞ্চম উইকেট জুটিতে ১৭৩ রান যোগ করেন। ব্রেন্ডন টেইলর ৯১ বলে সাতটি চার এবং একটি ছয়ের মারে ১০০ রান এবং সিকান্দার রাজা ৬৬ বলে সাতটি চার এবং নয়টি ছয়ের মারে ১২৩ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন। তাদের জোড়া শতকের উপর নির্ভর করে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ছয় উইকেটে ৩৮০ রান সংগ্রহ করে জিম্বাবুয়ে।

জিম্বাবুয়ের দেওয়া ৩৮১ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে শুরু থেকে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে নেপাল। শরদ ভেশাওকারের ৫২ রান এবং আরিফ শেখের ৫০ রানের ইনিংস সত্ত্বেও আট উইকেটে ২৬৪ রানে থেমে যায় নেপাল। জিম্বাবুয়েতে সাকিব আল হাসান উপাধি পাওয়া সিকান্দার রাজা ব্যাট হাতে ঝড়ো শতকের পর বল হাতেও তিন উইকেট শিকার করেন। ম্যাচ সেরা সিকান্দার রাজার অলরাউন্ড নৈপুণ্যে নেপালকে ১১৬ রানে হারায় জিম্বাবুয়ে।

ঝড়ো শতকের পর বল হাতে তিন উইকেট শিকার করে ম্যাচ সেরার পুরস্কার জেতেন সিকান্দার রাজা ; Source: Icc-Cricket.com

হারারে স্পোর্টস ক্লাবে পাপুয়া নিউগিনিকে ডাকওয়ার্থ লুইস পদ্ধতিতে ৫৬ রানে পরাজিত করে সংযুক্ত আরব আমিরাত। টসে জিতে আরব আমিরাতকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানায় পাপুয়া নিউগিনি। ব্যাট করতে নেমে উদ্বোধনী উইকেট জুটিতে ৯১ রান যোগ করে দলকে বড় সংগ্রহের ভিত গড়ে দেন অধিনায়ক রোহান মুস্তাফা এবং আশফাক আহমেদ। আশফাক আহমেদ ৫০ রান করে ফিরে গেলেও একপ্রান্ত আগলে রাখেন মুস্তাফা। দলীয় ২০৭ রানের মাথায় সপ্তম ব্যাটসম্যান হিসাবে সাজঘরে ফেরার আগে ১৩৬ বলে চারটি করে চার এবং ছয়ের মারে ৯৬ রান করেন তিনি।

দারুণ শুরুর পরেও তিন রান আউট এবং নরমান ভানুয়ার চার উইকেট শিকারে ৪৯.৪ ওভারে ২২১ রানে থেমে যায় আরব আমিরাতের ইনিংস।

দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৯৬ রান করেন সংযুক্ত আরব আমিরাতের অধিনায়ক মুস্তাফা ; Source: Icc-Cricket.com

আরব আমিরাতের ইনিংসে হারারেতে বৃষ্টি হানা দেয়। বৃষ্টির কারণে কয়েক ঘণ্টা খেলা বন্ধ থাকলে পাপুয়া নিউগিনিকে ২৮ ওভারে ১৭০ রানের লক্ষ্য দেওয়া হয়। জবাবে ব্যাট করতে নেমে মোহাম্মদ নাভিদের বোলিং তোপের মুখে পড়ে ২৫.৫ ওভারে ১১৩ রানে গুটিয়ে যায়। ম্যাচ সেরা নাভিদ ২৮ রানে পাঁচ উইকেট শিকার করেন।

দিনের আরেক ম্যাচে হারারের ওল্ড হারারিয়ান্সে বৃষ্টি আইনে নেদারল্যান্ডসকে ৯৩ রানে পরাজিত করেছে আয়ারল্যান্ড। নেদারল্যান্ডের অধিনায়ক পিটার বোরেন টসে জিতে আয়ারল্যান্ডকে ব্যাটিংয়ে পাঠান। উইলিয়াম পোর্টারফিল্ডের ৪৭ রান, অ্যান্ড্রু বালবির্নির ৬৮ রান এবং নিয়াল ও’ব্রাইনের ৪৯ রানের উপর ভর করে সাত উইকেটে ২৬৮ রান সংগ্রহ করে আয়ারল্যান্ড। ওল্ড হারারিয়ান্সে আয়ারল্যান্ডের ইনিংস শেষে বৃষ্টি নামলে নেদারল্যান্ডসকে জয়ের জন্য ৪১ ওভারে ২৪৩ রানের লক্ষ্য দেওয়া হয়। জবাবে আইরিশ বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে ৩২.২ ওভারে ১৪৯ রানে সবকটি উইকেট হারায়।

টিম মুরতাঘ তিনটি এবং ম্যাকার্থি, র‍্যানকিন ও কেভিন ও’ব্রাইন দুটি করে উইকেট শিকার করেন। অ্যান্ড্রু বালবির্নি তার ৬৮ রানের ইনিংসের পুরস্কার স্বরূপ ম্যাচ সেরার পুরস্কার জেতেন।

ফিচার ইমেজ: Icc-Cricket.Com

Related Articles