পদত্যাগ করেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট জ্যাকব জুমা

  • দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট জ্যাকব জুমা পদত্যাগ করেছেন
  • গতকাল বুধবার রাতে টেলিভিশনে প্রচারিত এক সংবাদ সম্মেলনে পদত্যাগের ঘোষণা দেন তিনি।
  • তার বিরুদ্ধে দীর্ঘদিন ধরে দুর্নীতির অভিযোগ ছিল। তার নিজের দলের পক্ষ থেকেই তাকে পদত্যাগ করার জন্য চাপ দেওয়া হচ্ছিল।

দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট জ্যাকব জুমার বিরুদ্ধে সাম্প্রতিক সময়ে দুর্নীতির অভিযোগে পদত্যাগের জোরালো দাবি উঠছিল। তার নিজের দল এএনসি (আফ্রিকান ন্যাশনাল কংগ্রেস) এর পক্ষ থেকে তাকে বুধবারের মধ্যে পদত্যাগের জন্য সময়সীমা বেঁধে দেওয়া হয়েছিল। প্রথমে তিনি পদত্যাগ করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছিলেন এই বলে যে, তিনি বুঝতে পারছেন না তার বিরুদ্ধে ঠিক কী অভিযোগ। পদত্যাগ করতে রাজি না হওয়ায় এএনসির নেতারা জুমার বিরুদ্ধে বৃহস্পতিবার অনাস্থা ভোট আয়োজন করার ঘোষণা দিয়েছিলেন।

কিন্তু বুধবার সকালবেলা দেশটির পুলিশ ধনী ব্যবসায়ী গুপ্ত পরিবারের বাড়িতে তল্লাশী চালানোর পরই রাতে পদত্যাগ করেন জ্যাকব জুমা। জুমার বিরুদ্ধে তার অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ গুপ্ত পরিবারকে অতিরিক্ত সুযোগ-সুবিধা দেওয়ার অভিযোগ আছে। বলা হয়, প্রেসিডেন্টের উপর ভারতীয় অভিবাসী এ পরিবারটির প্রভাব এত বেশি যে, মন্ত্রীসভার সদস্য কারা হবে, সেটি পর্যন্ত তারা নিয়ন্ত্রণ করে।

জুমার পদত্যাগের ফলে উপরাষ্ট্রপতি সিরিল রাম্পাপহোসা ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রপতি হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করবেন। তিনি বর্তমানে এএনসির প্রধান। দক্ষিণ আফ্রিকার নিয়ম অনুযায়ী প্রেসিডেন্ট পদত্যাগ করলে পরবর্তী ৩০ দিনের মধ্যে নতুন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত করার কথা। তার পূর্ব পর্যন্ত সংসদের কাজ অব্যাহত থাকবে এবং ডেপুটি প্রেসিডেন্ট ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।

৭৫ বছর বয়সী জুমা ২০০৯ সাল থেকে দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। তাকে দক্ষিণ আফ্রিকার বলিষ্ঠ নেতাদের একজন হিসেবে বিবেচনা করা হয়। ষাটের দশকে তিনি নেলসন ম্যান্ডেলার সাথে ১০ বছর কারাবন্দী ছিলেন। কিন্তু জুমার বিরুদ্ধে প্রচুর দুর্নীতি এবং ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগও আছে। তাকে বর্ণবাদী সরকারের পতনের পর দক্ষিণ আফ্রিকার সবচেয়ে বিতর্কিত প্রেসিডন্ট হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

বুধবার পদত্যাগ করার সময় জ্যাকব জুমা বলেন, তার দলের মধ্যে বিভাজন এবং সহিংসতা তাকে পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নিতে প্রভাবিত করেছে। তিনি চান না তার কারণে কোনো প্রাণহানি ঘটুক, অথবা এএনসির মধ্যে বিভাজন সৃষ্টি হোক। তিনি বলেন, “এসব কারণে আমি প্রেসিডেন্টের পদ থেকে পদত্যাগ করার সিদ্ধান্তে এসেছি, যা তাৎক্ষণিকভাবে কার্যকর হবে।

ফিচার ইমেজ- AFP

Related Articles