দিনে ৮ ঘণ্টা টিভি দেখেন ট্রাম্প!

বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর ব্যক্তি, যার কিনা প্রতিটি মুহূর্ত সময় কাটানোর কথা ছিল প্রচণ্ড ব্যস্ততায়, সেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড জে ট্রাম্প নাকি প্রতিদিন ৮ ঘণ্টা সময় টেলিভিশনের সামনে কাটান! প্রেসিডেন্টের ঘনিষ্ঠজনদের বরাত দিয়ে এরকম তথ্য প্রকাশ করেছে নিউ ইয়র্ক টাইমস পত্রিকা।

নিউ ইয়র্ক টাইমসের বর্ণনা অনুযায়ী, ট্রাম্প তার দিন শুরু করেন ভোর সাড়ে ৫টার সময়, তার প্রধান শয়নকক্ষের টেলিভিশনটি চালু করার মধ্য দিয়ে। এরপর দিনের বিভিন্ন সময় তিনি কমপক্ষে ৪ ঘণ্টা, কিন্তু অধিকাংশ সময়ই ৮ ঘণ্টা টিভির সামনে বসে থাকেন। পত্রিকাটি প্রেসিডেন্টের ৬০ জন উপদেষ্টা, বন্ধু এবং কংগ্রেস সদস্যের সাথে বলে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছে বলে দাবি করে।

ডোনাল্ড ট্রাম্প; Source: Ethan Miller/Getty Images

চলুন এক নজরে দেখে নেই, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তার দিনের উল্লেখযোগ্য একটি সময় টেলিভিশনের সামনে বসে কী ধরনের অনুষ্ঠান উপভোগ করেন:

  • সকাল বেলা ট্রাম্পের নিয়মিত দেখা অনুষ্ঠানগুলোর মধ্যে থাকে ফক্স নিউজ চ্যানেলের অনুষ্ঠান ‘ফক্স অ্যান্ড ফ্রেন্ডস’। ফক্স নিউজ চ্যানেলটি ট্রাম্পের প্রতি বন্ধুভাবাপন্ন এবং তার প্রিয় চ্যানেল হিসেবে পরিচিত।
  • ট্রাম্প নিয়মিতভাবেই তার বক্তব্যে সিএনএনকে ‘ফেক নিউজ’ তথা ভুয়া সংবাদ হিসেবে সম্বোধন করেন। কিন্তু নিউ ইয়র্ক টাইমস জানায়, তিনি প্রায় নিয়মিতই সিএনএনের বিভিন্ন অনুষ্ঠান দেখেন।
  • MSNBC চ্যানেলের ‘মর্নিং জো’ নামক অনুষ্ঠানটি ট্রাম্প নিয়মিত দেখেন। তার বন্ধুদের ধারণা, এটি তাকে আগত দিনটিতে লড়াইয়ের উদ্দীপ্ত করে তোলে। অনুষ্ঠানটির উপস্থাপক জো স্কারবারো এবং মিকা ব্রেজেজিন্সকির সাথে ট্রাম্প একসময় একাধিকবার প্রকাশ্য তর্কে জড়িয়ে পড়েছিলেন। নিউইয়র্ক টাইমসের ভাষায়, অনুষ্ঠানটি দেখে ক্ষিপ্ত এবং উদ্দীপ্ত হয়ে ট্রাম্প প্রায়ই তার আইফোনটি হাতে নিয়ে বিছানায় শোয়া অবস্থাতেই টুইট করা শুরু করেন। কারণ তার টুইট যুদ্ধের প্রধান রসদ হচ্ছে টেলিভিশন।
  • টিভিতে মনোযোগ দিতে না পারলে প্রেসিডেন্ট মাঝে মাঝে সাউন্ড বন্ধ করে রাখেন, কিন্তু প্রায় সারাক্ষণই তিনি টিভি চালু করে রাখেন এবং তাতে চোখ বুলিয়ে যেতে থাকেন। টিভিতে দেখানো সংবাদ এবং টকশোগুলো থেকেই তিনি বোঝার চেষ্টা করেন তার সম্পর্কে, তার রাষ্ট্রপতিত্ব সম্পর্কে এবং তার প্রশাসনের বিরুদ্ধে চলমান তদন্তগুলো সম্পর্কে গণমাধ্যম কী বলছে।
  • হোয়াইট হাউজের সবচেয়ে কঠিন নিয়মগুলোর মধ্যে একটি হচ্ছে, প্রেসিডেন্ট এবং তার টেকনিকাল স্টাফরা ছাড়া অন্য কেউ টেলিভিশনের রিমোট কন্ট্রোল স্পর্শ করতে পারবে না।

তার টুইট যুদ্ধের প্রধান রসদ হচ্ছে টেলিভিশন; Source: Chicago Tribune

  • হোয়াইট হাউজে ঘণ্টার পর ঘণ্টা সংবাদ এবং অন্যান্য টিভি অনুষ্ঠান রেকর্ড করে রাখা হয়, যেন সরাসরি দেখতে না পারলেও পরবর্তীতে অবসর সময়ে ট্রাম্প সেগুলো দেখতে পারেন।
  • তবে পত্রিকাটির ভাষায়, ট্রাম্পের কাছের মানুষরা জানিয়েছেন, এত সংবাদ এবং অনুষ্ঠান দেখলেও শেষ পর্যন্ত ট্রাম্প তার পছন্দের কয়েকটি উৎসের এবং বিশ্বস্ত কয়েকজন উপদেষ্টার দেওয়া সংবাদগুলোই শুধু বিশ্বাস করেন।
  • টিভির প্রতি প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের আগ্রহ নতুন না। প্রেসিডেন্ট হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার পরপরই ডোনাল্ড ট্রাম্প তার সহকারীদেরকে বলেছিলেন যে, তার রাষ্ট্রপতিত্বের প্রতিটি দিনকে টেলিভিশনের অনুষ্ঠান হিসেবে দেখানো উচিৎ, যার মাধ্যমে তিনি তার প্রতিদ্বন্দ্বীদেরকে পরাস্ত করে দেবেন।
  • সম্প্রতি এশিয়া ভ্রমণের সময় অবশ্য প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তার বিরুদ্ধে অতিরিক্ত টিভি দেখার অভিযোগ অস্বীকার করেছিলেন। তিনি বলেছিলেন, “আমি বেশি টিভি দেখি না। আমি জানি তারা এটা বলতে পছন্দ করে। যারা আমাকে চেনে না, তারা বলতে পছন্দ করে যে, আমি টিভি দেখি।” তিনি দাবি করেন, ভুয়া রিপোর্টাররা তাদের ভুয়া উৎসকে উদ্ধৃত করে তার টিভি দেখা সম্পর্কিত সংবাদ প্রচার করে, কিন্তু বাস্তবে প্রচুর নথিপত্র পড়ার কারণে তিনি টিভি দেখার সময় পান না।

ফিচার ইমেজ- Pinterest

Related Articles