সিরিয়ার ইদলিব প্রদেশে অভিযান বন্ধের জন্য রাশিয়া ও ইরানকে আহ্বান জানিয়েছে তুরস্ক। তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভুসোগলু বুধবার সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদের প্রধান দুই মিত্রদেশকে এ ব্যপারে আহ্বান জানান।

তিনি রাশিয়া ও ইরানকে একটি শান্তি পরিকল্পনার মাধ্যমে ইদলিবে সিরিয়া সরকার-বাহিনী কর্তৃক আক্রমণ ঠেকানোর ব্যাপারে বলেন। তার মতে, মস্কো ও তেহরানের সমর্থন ছাড়া সিরিয়ার বাহিনীর পক্ষে ইদলিব পৌঁছানো সম্ভব ছিল না।

তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভুসোগলু; Source: Iraqi News

বিগত ৮ জানুয়ারি সিরীয় সরকারের বাহিনী ইদলিবের দিকে অগ্রসর হয়ে ১৪টি গ্রাম দখল করে। তুরস্কের মতে, রাশিয়া ও ইরানের যুদ্ধবিমান আকাশপথে হামলা চালিয়ে এ ব্যাপারে তাদেরকে সহযোগিতা করে।

ইতোমধ্যে রাশিয়া সিরিয়ার ব্যাপারে জানুয়ারির ২৯-৩০ তারিখে সোচিতে একটি আলোচনা সভার পরিকল্পনা করেছে। সিরিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, এই আলোচনা সভাটি হবে বিগত সাত বছর ধরে চলে আসা যুদ্ধের সমাধান এবং সিরিয়া সরকারের সাথে বিদ্রোহীপক্ষের প্রতিনিধিদের আলোচনার প্রচেষ্টা।

অবশ্য এ আলোচনায় অংশগ্রহণে অস্বীকৃতি জানিয়েছিল সিরিয়ার বিদ্রোহী দলগুলো। তাদের মতে, স্থায়ী সমাধানের জন্য রাশিয়া সিরিয়ার সরকারের উপর কোনো চাপ প্রয়োগ করেনি।

এদিকে কাভুসোগলু বলেছেন যে, সোচিতে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হওয়ার পরে সমমনা দেশগুলোর সাথে সিরিয়া সম্পর্কে একটি বৈঠকে বসবে আংকারা

হামলায় বিধ্বস্ত ইদলিব; Source: The Japan Times

উল্লেখ্য , সিরিয়াতে ইদলিবই হচ্ছে বিদ্রোহীদের নিয়ন্ত্রণে রয়ে যাওয়া সর্বশেষ প্রদেশ। গত ডিসেম্বর মাসে সিরিয়ার সরকারি বাহিনী এ অঞ্চলে একটি অভিযান শুরু করে। সেখানকার হাসপাতাল, বাজারঘাট সরকারি বাহিনীর আকাশপথে অভিযানের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। হামলার কারণে প্রায় ২০ লক্ষ মানুষের আবাসস্থল ইদলিব থেকে এখন প্রায় এক লক্ষ মানুষ পালিয়ে গেছে।

ফিচার ইমেজ: NEWS.am